ঢাকা, বুধবার 17 May 2017, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় বিদ্যালয়ের জমি দখল করে বসবাস

খুলনা অফিস : খুলনার মহানগরীর আবু বক্কর খান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি দখল করে বসবাস করছে দুটি পরিবার।
স্থানীয় সোহাগ ও সোহেল নামে দুজন ওই জমি দখল করে টিনের ঘর নির্মাণ করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। জমি থেকে দখলদারদের উচ্ছেদ করার জন্য বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে আবেদন করলেও কোন সুফল হয়নি।
জানা গেছে, ১৯৮৫ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৯১ সালে রেজিষ্ট্রেশনের সময়ে কেসিসি বিদ্যালয়কে ১৮ শতক জমি দান করে। ওই জমিতে ১৪ পরিবার বাস করতেন। এরপর ভবন নির্মাণের সময় ২০০২ সালে ১২টি ঘর উচ্ছেদ করা হয়।
কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় ১২টি ঘর ভেঙ্গে ফেলা হলেও দুটি ঘর ভাঙ্গার জন্য এক মাস সময় দেওয়া হয়। কিন্তু সেই এক মাস সময় পেরিয়ে প্রায় দেড় যুগ পার হয়। কিন্তু এখনও সে উচ্ছেদ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হয়নি।
সরেজমিন দেখা যায়, সংকীর্ণ জায়গায় ছোট একটি খেলার মাঠ। ভবনের চারপাশে বাউন্ডারি নেই। মাঠ দখল করে আছে দুটি বসত ঘর। এরপরই বিদ্যালয়ের টয়লেট।
জমিতে বসবাসকারী গৃহবধূ হাসি আক্তার জানান, এটা স্কুলের জমি নয়, এটা কেসিসির জমি।
এখানে আমরা প্রথম থেকেই বাস করে আসছি। আর টয়লেটটা এনজিও আমাদের জন্য করে দিয়েছে।
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুর ইসলাম জানান, জমিটি স্কুলের। জমিটি কেসিসির ছিলো, ওটা উদ্ধারের ব্যাপারে কেসিসির উদ্যোগ নেওয়ার কথা।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইউসুফ হোসেন হাওলাদার বলেন, বিদ্যালয়ের জমি কম থাকায় উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে। বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প আসলেও তা আর বাস্তবায়নের সুযোগ হয়নি।
থানা সহকারী শিক্ষা অফিসার কামরুন্নাহার বলেন, দখলকৃত জমিটা সম্পর্কে আমার জানা নেই।
১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি মো. হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, ওখানে বিদ্যালয়ের কোন জমি দখল নেই। যে জমিটার ব্যাপারে অভিযোগ এসেছে তা কেসিসির।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ