ঢাকা, বৃহস্পতিবার 18 May 2017, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২১ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

উলিপুরের ঐতিহ্যবাহী কাজী মসজিদ

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা: কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলাধীন দলদলিয়া ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী পুরনো র্কীতি হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে কাজীর মসজিদ। মুঘল আমলের এই মসজিদটি বালু সিমেন্ট ব্যবহার না করে সুরকি ব্যবহার করে তৈরি করেছেন কারু শিল্পীরা। বর্তমানেও এই মসজিদে শত শত মুসল্লী নামাজ আদায় করেন। কিছুদিন আগে মসজিদটির উজ্জলতা হারাতে বসলে এলাকার মুসল্লীরা মেরামত করে উজ্জলতা ফিরিয়ে নিয়ে এসেছে। মসজিদটির দৈঘ্য ৩২ফুট ও প্রস্থ্য ১৩ফুট। দেয়ালের পুরত্ব প্রায় আড়াই ফুট। মসজিদটির ছাদে ছোট বড় ৮টি গম্বুজ রয়েছে। অতি পুরাতন হওয়ায় মসজিদটির কিছু অংশ মাটিতে দেবে গেছে। ভিতরে সাদা মাটা থাকলেও বাইরে খচিত অলংকরণ বেশী হওয়ায় আরো সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি পেয়েছে। মসজিদটির গায়ে শিলালিপি থেকে জানা যায়, ১২১৪ হিজরী সনে পারস্য (বর্তমান ইরান দেশ) থেকে  কাজী কুতুব উদ্দিন নামের একজন ধর্মযাজক এখানে এসে ইসলাম ধর্ম প্রচার করার জন্য এই মসজিদটি নির্মান করেন। তিনি এলাকায় ধর্ম প্রচার করে মুসল্লীদের নিয়ে এই মসজিদে ৫ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতেন। তিনি চলে যাওয়ার পরে এলাকার মুসল্লীরা দীর্ঘসময় সেখানে নামাজ আদায় করে। ধীরে ধীরে সেখানকার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। ফলে মসজিদটি ঝাড় জঙ্গলে ঢেকে যায়।
ওই এলাকার আঃ করিম (৯৬) জানান, মসজিদটি পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল। এক সময় এলাকার লোকজন মসজিদটি আবিষ্কারের পর পুনঃ সংস্কার করে। তখন থেকে মসজিদটিতে ১৫/২০জন মুসল্লী নিয়মিত নামাজ আদায় করেন। জায়গা সংকুলান না হওয়ায় কিছুদিন আগে মসজিদ সম্প্রসারণ করা হয়। ফলে মসজিদটির সৌন্দর্য্য আরো বৃদ্ধি পায়।
মসজিদটিকে কেন্দ্র করে প্রতি শুক্রবার বিভিন্ন এলাকা থেকে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা বিভিন্ন মানত সামগ্রী নিয়ে এসে মসজিদ কমিটির হাতে তুলে দেন। ২০০৩ সালে প্রতœতত্ত্ব¡ বিভাগ কাজীর মসজিদটি অধিগ্রহন করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ