ঢাকা, বৃহস্পতিবার 18 May 2017, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২১ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নির্বাচনকালীন সরকার আদায় করে নেয়া হবে -আবদুল্লাহ আল নোমান

গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয় গণতান্ত্রিক আন্দোলনের উদ্যোগে বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির দেয়া ভিশন নিয়ে আওয়ামী লীগ হা-হুতাশ করছে মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, দেশের মানুষ বর্তমানে এক কর্তৃত্ববাদী সরকারের অধীনে পড়েছে। নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার আন্দোলন করে আদায় করে নেয়া হবে বলেও জানান নোমান।
গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এই মানববন্ধনের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন নামের একটি সংগঠন।
আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, ক্ষমতাসীন সরকার নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে অনেক ব্যঙ্গ করছে। আমি তাদের উদ্দেশ্য বলতে চাই, আগামী নির্বাচনে বিএনপি যাবে, বর্জন করবে না। তার আগে সরকারকে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার দিতে বাধ্য করা হবে। কারণ নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার জনগনের দাবি।
তিনি বলেন, দেশে এখন কোনো কথা বলা যায়না। কথা বলার অধিকার নাই। সরকারের সমালোচনা করলে প্রতিনিয়ত হামলা মামলার শিকার হতে হচ্ছে। এই হলো এখন দেশের অবস্থা।
চট্টলা এই নেতা বলেন, দেশের সোনালি ফসল হচ্ছে আমাদের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব। তা রক্ষা করা আমাদের পবিত্র আমানত। কারণ স্বাধীনতা অর্জনে অসংখ্য মা বোন রক্ত দিয়েছেন। বহু মানুষ জীবন দিয়েছেন। তা আমাদেরকে রক্ষা করতে হবে। অথচ বর্তমান সরকার সার্বভৌমত্ব বিকিয়ে দেয়ার চক্রান্ত করছে।
নোমান আরও বলেন, এই দেশটা সবার। ক্ষমতার লোভে আওয়ামী লীগ গুম, খুন, লুট আর দুর্নীতির রাজনীতি করছে। কিন্তু আগামী দিনে বিএনপি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় গেলে কোনো ধরনের প্রতিহিংসার রাজনীতি করবে না।
বিএনপি ঘোষিত ভিশন-২০৩০’ প্রসঙ্গে নোমান বলেন, বিএনপি ভিশন দিয়েছে দেশের উন্নয়নের জন্য। একটি সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গঠনের জন্য। আমরা সেখানে বলেছি জনগণের অর্থনৈতিক মুক্তি আনতে রফতানি বাড়াতে হবে। মাথাপিছু আয় বাড়াতে হবে। অবৈধ সকল কালা কানুন বাতিল করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর একক ক্ষমতার ভারসাম্য আনা হবে। আমরা এখন অপূর্ণ জিনিসগুলো পূর্ণ করবো।
ভিশন নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের সমালোচনার জবাবে নোমান বলেন, আজকে আমাদের ভিশন নিয়ে আওয়ামী লীগ হা-হুতাশ করছে। তারা শঙ্কা করছে আমাদের ভিশন নিয়ে জনগণের মনে কোনো প্রতিক্রিয়া তৈরি হয় কি-না? আসলে জনগণ ভিশনকে একটি সমৃদ্ধির সোপান হিসেবে নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ এই ভিশনের আলোচনা, সমালোচনা করছে। এটা তারা করতেই পারে। ভিশনে কোনো ভুল থাকলে আমরা সংশোধন করব, কারণ এটা আমাদের শেষ ভিশন নয়।
সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহায়ক সরকার দিতে হবে। এটা শুধু আমাদের দাবি নয়, আন্দোলনের মাধ্যমে তা আদায় করা হবে। নেতাকর্মীদের আন্দোলন ও নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আসুন সবাই মিলে দেশটাকে গড়ে তুলি।
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দীন আলম, আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমতউল্লাহ, নিপুন রায় চৌধুরী, বাগেরহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, কৃষক দল নেতা শাজাহান মিয়া সম্রাট প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ