ঢাকা, বৃহস্পতিবার 18 May 2017, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২১ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পশ্চিমবঙ্গের মাদরাসা পরীক্ষায় হিন্দু ছাত্রীর সাফল্য

স্টাফ রিপোর্টার : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলার এক ছাত্রী প্রশমা শাসমল মাদরাসা বোর্ডের মাধ্যমিক পরীক্ষায় পুরো রাজ্যে ৮ম হয়েছে। ইসলাম ধর্ম শিক্ষায় সে একশর মধ্যে ৯৭ নম্বর পেয়েছে।
 কোনও হিন্দু ছাত্রী মাদরাসা পরীক্ষায় এর আগে এত ভালো ফল করেনি। সে কারণে, গত মঙ্গলবার ফল বেরুনোর পর থেকে প্রশমাকে নিয়ে শুধু হাওড়া নয়, পুরো রাজ্যেই চর্চা হচ্ছে।
বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়, হাওড়ার খালাতপুর হাই মাদরাসার ঐ ছাত্রী প্রশমা শাসমল বলছিল, র‌্যাঙ্ক করতে পেরে খুব ভাল তো লাগছেই। পরীক্ষা খুব ভালই হয়েছিল, নম্বরটা আরেকটু বেশী পেলে আরও ভাল লাগত।
পশ্চিমবঙ্গ মাদরাসা বোর্ডের সিলেবাসে হাই মাদরাসা স্তরে অন্য স্কুলের মতোই ইংরেজি, অঙ্ক, বিজ্ঞান প্রভৃতি বিষয়ের সঙ্গে আরবি এবং ইসলাম পরিচয় - এই দুটি বিষয় পড়তে হয়।
বিগত বামফ্রন্ট সরকারের আমলে পশ্চিমবঙ্গে মাদরাসা শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন করা হয়। হাই মাদরাসা পর্যায়ের সিলেবাস মাধ্যমিকের মতোই হলেও সিনিয়র মাদরাসা পর্যায়ে ইসলামী ধর্মশিক্ষার ওপরে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে।
একজন হিন্দু হয়েও আরবি আর ইসলাম পরিচয় - এই দুটি বিষয় পড়তে তার কেমন লাগত? এই প্রশ্নে প্রশমা বলেন, ওই দুটো সাবজেক্টকে আলাদা ভাবে দেখি নি কখনও। অন্য বিষয় যেমন পড়তাম এগুলোও সেইভাবেই পড়তাম, ভাল লাগত পড়তে। আর আমি ক্লাস সিক্সে এই মাদরাসায় ভর্তি হওয়ার পর থেকেই দেখেছি যে স্যারেরা এই দুটো বিষয়ে কে কেমন করছে, তার ওপরে খুব নজর দিতেন।
প্রশমা ইসলাম পরিচয় পরীক্ষায় ১০০র মধ্যে ৯৭ নম্বর পেয়েছে। বড় হয়ে প্রশমা পদার্থবিদ্যা নিয়ে গবেষণা করতে চায়।
বন্ধুদের মধ্যে হিন্দু-মুসলমান কাউকে কখনও আলাদা করে দেখি নি - একসঙ্গে খেয়েছি, আড্ডা মেরেছি। স্যারেদের মধ্যেও হিন্দু যেমন আছেন, মুসলমানও তেমন আছেন। সবাই আমাদের পড়াশোনার দিকে খুব নজর দিতেন ছোট থেকেই, বলছিলেন প্রশমা শাসমল।
প্রশমারই এক সহপাঠী, আরেক হিন্দু ছাত্র মলয় মাঝিও এবছরের মাদরাসা পরীক্ষায় ১৭ তম স্থান অধিকার করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ