ঢাকা, বৃহস্পতিবার 18 May 2017, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২১ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সাভারের হেমায়েতপুরে গার্মেন্টস শ্রমিককে গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা

সাভার সংবাদদাতা : সাভারে এক স্কুলছাত্রী ও এক গার্মেন্টস শ্রমিককে গণধর্ষণের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও এক গার্মেন্টস শ্রমিককে গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার ভোর রাতে সাভারের হেমায়েতপুর এলাকায় একটি বাড়িতে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।
ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী জানায়, সে রাজাশন এলাকায় এমটার নেট গার্মেন্টস এ হেলপার হিসেবে কাজ করেন গত কয়েক মাস ধরে। এ সময় তার সাথে মোবাইল ফোনে রাকিব নামের এক যুবকের পরিচয় হয়। পরে মঙ্গলবার রাতে ওই গার্মেন্টস শ্রমিককে কৌশলে রাকিব হেমায়েতপুর এলাকায় একটি বাড়িতে নিয়ে রাতভর চারজন মিলে গণধর্ষণ করে। পরে ওই গার্মেন্টস শ্রমিকের চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এসে গার্মেন্টস শ্রমিককে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে সাভার মডেল থানায় নিয়ে আসে। পরে সাভার মডেল থানা পুলিশ ওই গার্মেন্টস শ্রমিককে পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টফ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করে।
অন্যদিকে মঙ্গলবার সাভার থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে প্রথম শ্রেণীর একছাত্রীকে ধর্ষণ ও সাভারের কাতলাপুর এলাকায় এক গার্মেন্টস শ্রমিককে গণধর্ষণ করে বখাটেরা। পুলিশ ধর্ষণকারীদের আটক না করে উল্টো ধর্ষিতার পরিবারকে হয়রানি করেন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা।
এ বিষয়ে সাভার মডেল থানায় সাংবাদিকরা ধর্ষণের তথ্য নিতে গেলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম কামরুজ্জামান সাংবাদিকদের উপর রেগে বলেন কিসের ধর্ষণ হয়েছে আমার জানা নেই। ধর্ষণের স্বীকার ওই গার্মেন্টস শ্রমিক চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানার চাঁদপুর গ্রামের তোরফান মিয়ার মেয়ে। সে সাভার বাজার রোড এলাকায় একটি বাড়িতে কক্ষ নিয়ে ভাড়া থাকেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ