ঢাকা, সোমবার 20 May 2019, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৪ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

‘ল্যাভরভের কাছে কোমির সমালোচনা করেছিলেন ট্রাম্প’

অনলাইন ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তাহে রুশ কূটনীতিকদের সঙ্গে সাক্ষাতে তার একদিন আগে বরখাস্ত হওয়া এফবিআই প্রধানের সমালোচনা করেছিলেন বলে মার্কিন গণমাধ্যম খবর দিয়েছে।

ওই বৈঠকের লিখিত স্ক্রিপ্টের বরাত দিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, সাবেক এফবিআই প্রধান জেমস কোমিকে ‘উন্মাদ ব্যক্তি’ বলে অভিহিত করেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, তাকে সরিয়ে দেয়ার ফলে “আমার ওপর থেকে ‘মারাত্মক চাপ’ কমে গেছে।”

গত বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে রাশিয়ার সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনি প্রচার দলের কোনো গোপন যোগসাজশ হয়েছিল কিনা কোমি যখন তা খতিয়ে দেখছিলেন তখন তাকে এফবিআই’র পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে দেন ট্রাম্প। 

সর্বশেষ পাওয়া খবরে জানা গেছে, সাবেক এফবিআই প্রধান ওই তদন্তের ব্যাপারে সিনেটের গোয়েন্দা কমিটিতে সাক্ষ্য দিতে রাজি হয়েছেন।  প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নির্বাচনের আগে রাশিয়ার সঙ্গে কোনো গোপন যোগাযোগের অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন।

কোমিকে বরখাস্ত করার পরের দিন হোয়াইট হাউজে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এবং ওয়াশিংটনে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত সের্গেই কিসলিয়াকের সঙ্গে বৈঠক করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেখানে তিনি বলেন, “আমি এফবিআই প্রধানকে এজন্য বরখাস্ত করেছি যে, তিনি ছিলেন সত্যিকার অর্থেই এক উন্মাদ ব্যক্তি।” তিনি আরো বলেন, “রাশিয়ার কারণে আমি মারাত্মক চাপের সম্মুখীন হয়েছিলাম। সে চাপ এখন সরে গেছে।”

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, এই কথোপকথনে ব্যবহৃত পরিভাষা বিশেষ করে ‘এই উন্মাদ ব্যক্তি’ (real nut job) ব্যবহারের সত্যতা অস্বীকার করেনি হোয়াইট হাউজ।  এ সম্পর্কে হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র শ্যান স্পাইসার বলেছেন, “রাশিয়া সংক্রান্ত তদন্তের বিষয়টিতে রাজনৈতিক রং লাগিয়ে জেমস কোমি হোয়াইট হাউজের ওপর অনর্থক চাপ সৃষ্টি করেছিলেন।”

নিউ ইয়র্ক টাইমস এমন সময় এ খবর প্রকাশ করল যখন প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথম বিদেশ সফরে ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে ওয়াশিংটন ত্যাগ করেছেন। তিনি সৌদি আরব থেকে ইসরাইলে যাবেন এবং সেখান থেকে ইতালিতে জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেয়ার আগে ভ্যাটিক্যানে পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে কথা রয়েছে।-পার্স টুডে

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ