ঢাকা, রবিবার 21 May 2017, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২৪ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের হৃৎকম্পন শুরু হয়েছে -দুদু

বুলু খোকনসহ সকল রাজবন্দীর মুক্তির দাবিতে গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

 

স্টাফ রিপোর্টার : ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের হৃৎকম্পন শুরু হয়েছে মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, বিএনপির ভিশন-২০৩০ ঘোষণার পর আ’লীগের অবস্থা খুবই খারাপ। এতই খারাপ হয়েছে যে ক্ষমতা হারানোর ভয়ে তাদের হৃৎকম্পন শুরু হয়েছে।

গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন আয়োজিত বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন ও মধুখালী পৌর সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ সতেজসহ সব রাজবন্দীর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, নির্বাচনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে সরকার তত নার্ভাস হয়ে পড়ছে। পুলিশকে ব্যবহার করে সাবেক তিন বারের প্রধানমন্ত্রী এবং আগামীকাল নির্বাচন হলে বিএনপির জয়লাভের মধ্য দিয়ে যিনি প্রধানমন্ত্রী হবেন তার অফিসে পুলিশী তল্লাশির নামে হাস্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়েছে।

এ সময় সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, যতই চেষ্টা করুন ক্ষমতায় থাকতে পারবেন না। আগামী দিনে বাংলাদেশে নির্বাচন হবে সহায়ক সরকারের অধীনে, দলীয় সরকার বলে কিছুই থাকবে না। তখন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য আপনারা কোনও প্রার্থীই খুঁজে পাবেন না।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে দুদু বলেন, দুর্নীতিবাজদের যদি ধরতে চান তাহলে সংসদে যান। তিনি উল্লেখ করেন, বনানীর রেইন ট্রি হোটেলে ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার মূলহোতার বাবা আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য। পুলিশ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না। বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলা অব্যাহত রেখেছে।

নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবি জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু ও যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন, সংগ্রাম করছে। তাদেরকে কারাগারে রাখার অর্থই হল গণতন্ত্রকে কারাগারে রাখা। এ সময় তিনি সকল রাজবন্দীর নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।

আায়োজক সংগঠনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, জিনাপের সভাপতি মিয়া মোহাম্মাদ আনোয়ার প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ