ঢাকা, রবিবার 28 May 2017, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ১ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রমযানের শিক্ষাকে বুকে ধারণ  করে নিজেদের পবিত্র মানুষ  হিসেবে গড়ে তুলতে হবে ---- খালেদা জিয়া

 

স্টাফ রিপোর্টার: মাহে রমযানে বিশ্বের সকল মুসলমানদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, মাহে রমযানে অনাচার, হিংসা, বিদ্বেষ, হানাহানি পরিহার করে সমাজে শান্তি বজায় রাখা প্রতিটি মুসলমানের কর্তব্য। এ শিক্ষাকে বুকে ধারণ করে নিজেদেরকে পবিত্র মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে আমাদেরকে ব্রতী হতে হবে। পবিত্র মাহে রমযান উপলক্ষে গতকাল শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বাণীতে তিনি একথা বলেন। 

বাণীতে খালেদা জিয়া বলেন,পবিত্র মাহে রমযান সমাগত। এ পবিত্র মাস সমগ্র মুসলিম উম্মাহ’র জন্য রহমত, বরকত ও নাজাতের মাস হিসেবে সম্মানিত। তাই মুসলিম উম্মাহ পরম করুণাময় আল্লাহ রাব্বুল ইজ্জাত’র সন্তুষ্টি লাভে নিজেদের নিয়োজিত রাখতে সচেষ্ট হন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের মুসলমান রমযান মাসে সিয়াম সাধনার মধ্য দিয়ে আল্লাহর নৈকট্য লাভের জন্য আত্মার পরিশুদ্ধির প্রশিক্ষণে নিয়োজিত হয়। সারাদিন সকল ধরনের পানাহার থেকে মুক্ত হয়ে মোমিন মুসলমানরা আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করেন। হিংসা-বিভেদ, অন্যায়, জুলুম, অবিচার এবং লোভ লালসাসহ সকল ধরনের পাপকাজ  থেকে বিরত থাকার এক মহান শিক্ষা দেয় মাহে রমযান। এ শিক্ষাকে বুকে ধারণ করে নিজেদেরকে পবিত্র মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে আমাদেরকে ব্রতী হতে হবে। অনাচার, হিংসা, বিদ্বেষ, হানাহানি পরিহার করে সমাজে শান্তি বজায় রাখতে সচেষ্ট থাকা প্রতিটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানের অবশ্য কর্তব্য। মাহে রমযান প্রতিটি মুসলমানের জীবনে বয়ে আনুক শান্তি-সুখের বার্তা, সবার জীবন হয়ে উঠুক মঙ্গলময়, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের দরবারে আমি এ প্রার্থনা জানাই।

এদিকে  রোজার শুরুতে টুইট করে মুসলমানদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খালেদা জিয়া। শনিবার বিকালে এক টুইটে বিএনপি চেয়ারপার্সন বলেন, রহমতের সওগাত নিয়ে সমাগত পবিত্র রমযানের প্রারম্ভে আসুন আমরা  মোনাজাত করি, অশুভের উপর হক, ইনসাফ, সুবিচার ও ন্যায়পরায়নতা বিজয়ী  হোক।

এদিকে অপর এক বাণীতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, পবিত্র রমযান উপলক্ষে আমি বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল মুসলমানদের জানাই আমার প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও  মোবারকবাদ। পবিত্র রমযান মাসে একজন  রোজাদার মহান রাব্বুল আলামীনের নিকট করুণা ভিক্ষা করলে সন্তুষ্টিচিত্তে তিনি বান্দাকে ক্ষমা করে দেন। এই পবিত্র মাহে রমযানে একজন প্রকৃত মোমিন ব্যক্তি সারাদিন সকল ক্ষেত্রে সংযমী থাকেন আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায়। তাই সংযমের মধ্য দিয়ে প্রতিহিংসা ও অন্যায়-অবিচারের পঙ্কিল আবর্ত থেকে মুক্ত হয়ে সমাজ জীবনে শান্তি ফিরে আসুক-এই  হোক পবিত্র রমযান  মাসে আমাদের প্রার্থনা। আমি মাহে রমযানে সকলের সুখ-শান্তি ও কল্যাণ কামনা করি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ