ঢাকা, মঙ্গলবার 30 May 2017, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৩ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা না করলে আ’লীগের অস্তিত্ব জাদুঘরেও খুঁজে পাওয়া যেত না -আবদুল্লা আল নোমান

শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা না করলে রাজনৈতিক দল হিসেবে আওয়ামীলীগের অস্তিত্ব জাদুঘরেও খুঁজে পাওয়া যেত না বলে মন্তব্য করেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিএনপি কর্মী ও সাবেক মন্ত্রী আবদুল্লাহ আল নোমান।
স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৬’তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল সোমবার থেকে দিনব্যাপী চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় গরীব, অসহায় মানুষের মধ্যে সেহেরী ও ইফতার সামগ্রী বিতরণকালে নগরীর শুলকবহরস্থ ক্রিয়েটিভ পার্ক কমিউনিটি সেন্টারে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবদুল্লাহ আল নোমান এই মন্তব্য করেন।
আবদুল্লাহ আল  নোমানের ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় সেহেরী ও ইফতার সামগ্রী বিতরণের এই পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।
আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করার জন্য শেখ মুজিবুর রহমান আওয়ামীলীগকে বিলুপ্ত করে বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন কিন্তু সেটা সুখকর হয়নি। বর্তমান সরকারও ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করার জন্য ’৭৫এর এনালগের পরিবর্তে এখন দেশে ডিজিটাল বাকশাল প্রবর্তনের নীল নকশা করছেন। সরকারের এই নীল নকশা ভেস্তে যাবে। ’৫২, ’৬৯,’৭১ ও ’৯০ এর ধারাবাহিকতায় দেশে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হবে এবং সে আকাংঙ্খিত দিন খুব সন্নিকটে।
আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, শহীদ জিয়া অগ্রসর চিন্তার অধিকারী ছিলেন। তাঁর ১৯ দফা কর্মসূচী ছিল সুখী ও সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার অন্যতম সোপান। শহীদ জিয়া ছিলেন শ্রেষ্ঠ মুক্তিযোদ্ধা এবং তাঁর প্রতিষ্ঠিত দল বিএনপি হচ্ছে সংখ্যাগরিষ্ঠ মুক্তিযোদ্ধার দল।
আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, জিয়ার আদর্শ, চিন্তা ও চেতনাকে পরিপূর্ণভাবে ধারণ করে তা যথাযথভাবে অনুসরণ করলে বিএনপি আরো বেশী শক্তিশালী ও সুসংগঠিত হবে।
শুলকবহর ওয়ার্ড বিএনপির আহবায়ক আশরাফ উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মামুনুল ইসলাম হুমায়ুনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মহানগর যুবদলের সভাপতি কাজী বেলাল, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ আলী, শায়েস্তা উল্লাহ চৌধুরী, কাজী শামসুল আলম, শহীদুল ইসলাম খসরু, ইকবাল পারভেজ, মোহাম্মদ হাসান, হাসান ওসমান, জমির উদ্দিন নাহিদ, আবদুল হাই, শাহাদাত হোসেন প্রমূখ।
১৩ নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডে খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা তোফাজ্জল হোসেন, মোস্তফা কামাল, জাহিদ মাস্টার, টিপু সুলতান, এস.এম. আজাদ, মোহাম্মদ শাহ আলম, আজাদ, মোহাম্মদ মনির, মোহাম্মদ শরিফ প্রমুখ।
এছাড়া আবদুল্লাহ আল নোমান একই দিনে পাহাড়তলী, লালখানবাজার, উত্তর আগ্রাবাদ, ২৬ নং উত্তর হালিশহর, দক্ষিণ কাট্টলী, সরাইপাড়া ও রামপুরা এলাকায় পৃথক পৃথকভাবে গরীব, অসহায় মানুষের মধ্যে সেহেরী ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ