ঢাকা, বুধবার 31 May 2017, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৪ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের পাশে দাঁড়াতে মকবুল আহমাদের আহ্বান

চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার উপকূলে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র আঘাতে ৬ জন লোক নিহত, বেশকিছু সংখ্যক লোক আহত, উঠতি ফসল, গাছ-পালা ও কাঁচা ঘর-বাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর মকবুল আহমাদ। 

গতকাল মঙ্গলবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে সেন্টমার্টিন, টেকনাফ, কুতুবদিয়া, মহেশখালী এলাকায় উঠতি ফসল ও গাছ-পালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বহু কাঁচা ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত ও বিধস্ত হয়েছে এবং বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে গিয়ে বহু বাড়ি-ঘর প্লাবিত হয়েছে। 

তিনি বলেন, বাড়ি-ঘর ছেড়ে মানুষ সাইক্লোন সেন্টারে আশ্রয় নিয়েছেন। সাইক্লোন সেন্টারে যারা আশ্রয় নিয়েছে বিশুদ্ধ পানির অভাবে তাদের অনেকেই ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং খাদ্যের অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। সর্বোপরি সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। 

সাইক্লোন সেন্টারে যারা আশ্রয় গ্রহণ করেছে তাদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ খাদ্য, বিশুদ্ধ পানি, আহত ও অসুস্থদের জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ এবং গৃহহীন লোকদের জন্য গৃহ নির্মাণ সামগ্রী ও নিহতদের পরিবার-পরিজন এবং ক্ষতিগ্রস্তদের উপযুক্ত পরিমাণ আর্থিক সাহায্য প্রদান করার জন্য তিনি সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান। সেই সাথে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের পাশে দাঁড়াবার জন্য তিনি বিশেষভাবে সংশ্লিষ্ট এলাকার জামায়াতের নেতা-কর্মী এবং বিত্তবান লোকদের প্রতি আহ্বান জানান।

ঘূর্ণিঝড়ে যারা নিহত হয়েছেন তিনি তাদের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাদের শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজন ও আহতদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ