ঢাকা, বুধবার 31 May 2017, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৪ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চুয়াডাঙ্গায় মাপের হেরফেরে ঠকছে প্রান্তিক চাষীরা

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা : দেশের সর্বত্র ডিজিটালের ছোয়াঁ লাগলেও চুয়াডাঙ্গার হাটে বাজারে আজও বহাল তবিয়তে চলছে আদিম যুগের কাটাপাল্লা আর রোমান সংখ্যার হিসাবে আড়ৎ ব্যবসা। এতে করে আড়ৎদাররা লাভবান হলেও হিসাবের মারপ্যাচে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে গ্রামের অশিক্ষিত প্রান্তিক কৃষক। 

মানব সভ্যতার বিকাশে প্রয়োজনের তাগিদে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ওজন পদ্ধতি মানুষ গ্রহণ করেছে। ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে সর্বশেষ ডিজিটাল ওজন পদ্ধতি আর কেজি পদ্ধতির নিয়মনীতি অনুসারে দেশ চললেও চুয়াডাঙ্গার সুবিধাবাদি ভুষিমাল আড়ৎ ব্যবসায়ীরা চলছে উল্টোপথে। বর্তমানে শিক্ষা, চিকিৎসাসহ মানুষের সকল প্রকার মৌলিক চাহিদায় আধুনিকতার ছোঁয়া বইছে সেখানে চুয়াডাঙ্গার ভুষিমাল ও আড়ৎ ব্যবসায় আদিম যুগের মানুষের মত দাগ কেটে রোমান সংখ্যা ব্যবহার হচ্ছে হিসাব নিকাশে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন আড়ৎ ব্যবসায়ী জানান, যখন কোন চাষীর কাছ থেকে আমদানীকৃত মালামাল আড়তে কেনা হয় তখন ঐ মাল কাটা পাল্লায় ওজনের সময় রোমান সংখ্যা ব্যবহার করে হিসাব নিকাশ করা হয়। আবার একই মাল বড় বড় ব্যবসায়ীদের কাছে রপ্তানি করার সময় ঠিকই ডিজিটাল পাল্লায় ওজন দেওয়া হয়। কাটা পাল্লায় ক্রয় করে বিক্রয়ের জন্য ডিজিটাল পাল্লায় ওজন দিলে মালের ওজন এমনিতেই বেড়ে যায়। এর কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন-বস্তার ওজন ঢলতা ইত্যাদি দিয়ে বুঝিয়ে দেন। একজন সহজ সরল চাষী জানান- মালামাল যখন ওজন দেয় ১,২,৩ লেখা জানলেও রোমান সংখ্যার ব্যবহার ক্ষেত্রে তার কোন ধারণা নেই। তাই ওজনের সময় এ রোমান সংখ্যার একটি দাগ যদি মনের অজান্তে না কাটে তাহলে ঠকবে ঐ গরিব চাষী, আর লাভবান হবে ভুষিমাল আড়ৎ ব্যবসায়ী। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এ সমস্ত কারণে আড়ৎ ব্যবসায়ীরা অল্প সময়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও ঠকছে প্রান্তিক চাষী। যারা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ফসল উৎপাদন করছে সে সকল চাষীরা ঠকছে নীরবে দেখার যেন কেউ নেই। দর্শনা, দোস্তবাজার, হিজলগাড়ি, আন্দুলবাড়ীয়া, জীবননগর, কার্পাসডাঙ্গা, আলমডাঙ্গা, চুয়াডাঙ্গার বদরগঞ্জ, সরোজগঞ্জসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় এ রোমান সংখ্যা ব্যবহার করছে আড়ৎ ব্যবসায়ীরা। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টির প্রতি দৃষ্টি দিলে এবং যথাযথ ডিজিটাল ক্রয়বিক্রয় পদ্ধতি অনুসরণ করা হলে গরীব চাষীরা যেমন নীরবে ঠকবে না, তেমনি সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স¦প্ন পুরণে সহযোগীতার হাত বাড়ানো হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ