ঢাকা, বৃহস্পতিবার 01 June 2017, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৫ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কালিয়াকৈরে আরেক গার্মেন্টস কর্মীকে অপহরণের অভিযোগ

কালিয়াকৈর সংবাদদাতা : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকা থেকে গত সোমবার সকালে  দুর্বৃত্তরা মোতালেব হোসেন রাজু নামের এক গার্মেন্টকর্মীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অপহৃতের স্ত্রী পারভীন খাতুন বাদী হয়ে ড্রেসম্যান নামের একটি পোশাক তৈরির কারখানার পরিচালক প্রশাসন শরিফুল ইসলাম শামীম ও ঝুট ব্যবসায়ী আফজাল হোসেনের নামে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এদিকে পল্লীবিদ্যুৎ দীঘিরপাড় এলাকা থেকে ডিবি পরিচয়ে সামিউল ইসলাম (২০) নামে  এক কলেজ শিক্ষার্থীকে অপহরণ করা হয়। গত ১৩ দিনেও উদ্ধার হয়নি সে। অপহৃতের পরিবারের সদস্যরা পুলিশ  সামিউল ইসলামকে উদ্ধারের ব্যাপারে তেমন তৎপরতা দেখাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন। দুই অপহৃতের পরিবার ও পুলিশ এবং মামলার এজাহারে জানা যায়, বাড়ইপাড়া এলাকার জসিম উদ্দিনের ভাড়াটিয়া ও চন্দ্রা এলাকার ড্রেসম্যান নামক পোশাক তৈরির কারখানা অফিস সহকারী কর্মকর্তা মোতালেব হোসেন রাজু সোমবার সকালে কর্মস্থলে যোগদানের জন্য বের হয়। কিন্তু পথিমধ্যে  দুর্বৃত্তরা তাকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। এ সময় রাজুর দুইটি মোবাইল সেট বন্ধ থাকায় মঙ্গলবার দুপুরে মোতালেব হোসেন রাজুর স্ত্রী পারভীন খাতুন বাদী হয়ে একটি অপহরণ অভিযোগ দেন।

অপহৃতের স্ত্রী পারভীন খাতুন জানান, আমার স্বামী মোতালেব হোসেন রাজু  ড্রেসম্যান নামক তৈরি পোশাক কারখানার অফিস সহকারী কর্মকর্তা। অফিসের সকল বিষয়াদি মালিককে অবগত করানোর অভিযোগে পরিচালক প্রশাসন শরিফুল ইসলাম শামীম ও এলাকার ঝুট ব্যবসায়ী আফজাল হোসেন তাকে (স্বামীকে) প্রায় প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে আসছিল। তাকে প্রাণ নাশের  হুমকি দেওয়ার বিষয়টি মালিককে জানানো হলে ওই দুই ব্যক্তি আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। পারভীন খাতুনের ধারণা তার স্বামীকে মোতালেব হোসেন রাজুকে ওই দুই ব্যক্তি অপহরণ করে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে  রেখে নির্যাতন করছেন। অপহৃত মোতালেব হোসেন রাজুর বাড়ি বাগেরহাট জেলার কচুয়া থানার মানদিয়া গ্রামে।

 ড্রেসম্যান কারখানার প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ শরিফুল ইসলাম শামীম জানান,অভিযোগটি ভিত্তিহীন। কারণ ঘটনার আগের দিন কারখানা থেকে বের হওয়ার সময় প্রকৌশলী নাইম এর কাছে বলেন গিয়ে ওই দিন কারখানায় আসতে তার দেরি হবে। কিন্তু ওই দিন তার স্ত্রীর কাছে বলে আসে সে হেড অফিসে যাবে। এরপর সে হেড অফিসেও যায়নি এবং কারখানায় আসেনি। তার পর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। 

এ ব্যাপারে কালিয়াকৈর থানার এসআই সানোয়ার হোসেন জানান, আবেদনটি হাতে পাওয়ার পর  তদন্ত করে মোতালেব হোসেন রাজুকে উদ্ধারের জন্য অভিযান চালানো হবে।

 অপর দিকে গত ১৭মে ভোর রাতে তার চন্দ্রা পল্লীবিদ্যুৎ দীঘিরপাড় এলাকার বাসা থেকে সামিউলকে অপহরণ  করে কয়েকজন দুর্বৃত্ত। ওই দিন সকালে  অপহৃতের বড়বোন সালমা আক্তার বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগটি হাতে  পেয়ে থানার এসআই মোশারফ হোসেন অপহৃতকে উদ্ধারের ব্যাপারে মাঠে নামেন। অপহৃত সামিউল গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা পল্লীবিদ্যুৎ দীঘিরপাড় এলাকার ছমির উদ্দিনের ছেলে এবং চন্দ্রাস্থ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজ থেকে ২০১৭ সালে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচ এসসি পরীক্ষার্থী।  

সালমা আক্তার জানান, ১৭ মে রাতে ছোট ভাই সামিউল ইসলাম ও তার আর এক ছোট বোনকে নিয়ে একই রুমে ঘুমাচ্ছিলেন।  রাত ৩ টার দিকে ৭/৮ জনের একদল লোক হঠাৎ রুমের মধ্যে ঢুকে সামিউলকে তুলে নিয়ে যাচ্ছিল। এসময় তারা বাধা দিলে ডিবি অফিস থেকে এসেছি বলে পরিচয় দেয়। ওই দিন গাজীপুর ডিবি, র‌্যাব  অফিস ও কালিয়াকৈর থানায় যোগাযোগ করে তাকে কোথাও  পাওয়া যায়নি। পরে কালিয়াকৈর থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন সালমা।  

অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা  কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) মোঃ মোশারফ হোসেন তুহিন জানান, অভিযোগের তদন্ত করছি। একটু সময় লাগছে। 

গাজীপুর ডিবির ওসি মোঃ আমির হোসেন জানান, অপহৃত সামিউলের পরিবারের 

লোকজন ডিবি অফিসে এসেছিল। গাজীপুর ডিবি অফিসের কেউ তাকে আনেনি।  কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. আব্দুল মোতালেব মিয়া জানান, দুইটি ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ