ঢাকা, শুক্রবার 02 June 2017, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৬ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চসিক নির্ধারিত স্থানে ব্যবসার সুযোগ পাবে হকারগণ 

 

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র  আ জ ম নাছির উদ্দীন ফুটপাত হকার ব্যবসায়ীদের  আগামী পবিত্র ঈদ-উল ফিতর পর্যন্ত বর্তমান অবস্থানে থেকে ব্যবসা পরিচালনা করার সুযোগ দিয়েছেন। ৩১ মে  দুপুরে নগরভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত রেজিষ্টার্ড হকার সংগঠকদের সভায় মেয়র এসকল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। তিনি বলেন, হকার উচ্ছেদ করা হবে না। ঈদ-উল ফিতর এর পর ০১ জুলাই ২০১৭ খ্রি. থেকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্ধারিত স্থান ও সময়ে সিটি কর্পোরেশনের পরিচয়পত্রধারী হকার’রা বিকেল ৫টা থেকে রাত ১১/১২ পর্যন্ত ব্যবসা পরিচালনা করার সুযোগ পাবে। এ লক্ষ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ নগরীর ফুটপাতগুলোকে টাইলস্ দ্বারা দৃষ্টিনন্দন করবে এবং আলাদা আলাদা করে দোকানের পজিশন মার্কিং সহ নাম্বারিং করে দিবে। নির্দিষ্ট আইডি কার্ডধারী হকার’রা তার আইডি নম্বর অনুযায়ী নির্দিষ্ট স্থানে ব্যবসা পরিচালনা করবে। ফুটপাতে জনসাধারণ চলাচলের সুযোগ রেখে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। এছাড়াও প্রত্যেক হকারকে দৃষ্টিনন্দন একটি বড় আকারের ছাতা সরবরাহ করা হবে যাতে হকারদের দৃষ্টিনন্দন দেখায়। নির্দিষ্ট স্থানের বাইরে জায়গা দখল করে কোন ধরনের ব্যবসা পরিচালনার সুযোগ পাবে না কোন হকার। দৃষ্টিনন্দন, পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশ বান্ধব নগরী গড়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষে হকারদের জন্য এ ব্যবস্থাপনা গ্রহণ করলেন মেয়র। এছাড়াও জায়গা প্রাপ্তি সাপেক্ষে হকারদের পুনর্বাসনের লক্ষ্যে মার্কেট তৈরি করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। 

হকার সংগঠকদের সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, হকার ব্যবসায় জড়িত সকলেই এদেশের নাগরিক। তাদের সুখ-দুঃখ, ভাল মন্দ ও জীবন জীবিকার স্বার্থে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন হকার উচ্ছেদ না করে তাদেরকে শৃংখলার মধ্যে আনয়নের লক্ষ্যে এ সুযোগ সৃষ্টি করেছে। মেয়র বলেন, ১ জুলাই থেকে নির্ধারিত স্থানে হকাররা ব্যবসা পরিচালনা করবেন। কোন অবস্থাতেই নির্ধারিত স্থান ও সময়ের বাইরে অন্য কোথাও কোন হকার বসে ব্যবসা করতে পারবে না। যদি এধরনের বিশৃংখলা ও অনিয়ম পরিলক্ষিত হয় তাহলে চসিক এর ম্যাজিষ্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে। তিনি আশা করেন নগরীর পরিচ্ছন্ন পরিবেশ, দৃষ্টিনন্দন ও বিশ্বমানের নগরী গড়ার পরিকল্পনাকে সহযোগিতা করবে হকার ব্যবসায়ীরা। সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ড. মুহম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান, স্পেশাল ম্যাজিষ্ট্রেট জাহানারা ফেরদৌস, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সনজীদা শরমিন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম, প্রধান পরিকল্পনাবিদ এ কে এম রেজাউল করিম, হকার সংগঠন ও সমিতির মধ্যে চট্টগ্রাম হকার্সলীগ এর সভাপতি নুর আহমদ, সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ হারুন, চট্টগ্রাম সম্মিলিত হকার্স ফেডারেশনের সভাপতি মো. মিরন হোসেন মিলন, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হকার্স সমিতির সাধারন সম্পাদক মো. জসিম মিয়া, চট্টগ্রাম ফুটপাত হকার্স সমিতির সভাপতি নূরুল আলম লেদু, সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুর রহমান, আন্দরকিল্লা টেরীবাজার হকার সমিতির সহ সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন, ইপিজেড এলাকা হকার্সলীগের সভাপতি মো. মিলন, সাধারন সম্পাদক মো. পারভেজ সহ সংশ্লিষ্ট হকার্স নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ