ঢাকা, সোমবার 05 June 2017, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৯ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চট্টগ্রাম আবাহনীকে আরেকটি ট্রফি দিতে চাই -জাহিদ হোসেন

স্পোর্টস রিপোর্টার : ফেডারেশন কাপের ফাইনালের ঠিক ১৩ মাস আগে ঘরোয়া ফুটবলে নতুন ইতিহাস তৈরি করেছিল চট্টগ্রাম আবাহনী। প্রথমবারের মতো স্বাধীনতা কাপ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল চট্টগ্রামের দলটি। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফাইনাল হয়েছিল গত বছর ৭ মে। বছর ঘুড়তেই চট্টগ্রাম আবাহনীর সামনে আরেকটি ইতিহাস সৃষ্টির হাতছানি। এবার ফেডারেশন কাপ। ঘরোয়া ফুটবলের অন্যতম বড় এ টুর্নামেন্টে আগে কখনো সেমিফাইনালই খেলেনি চট্টগ্রামের আকাশী-হলুদরা। এবার তারা ফাইনালে।
এক বছর আগে ইতিহাস গড়ার ম্যাচে বাধা ছিল ঢাকা আবাহনী। এবারও তাই। দুই আবাহনীর ফেডারেশন কাপ ফাইনাল প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম আবাহনীর অধিনায়ক জাহিদ হোসেন বললেন,জয়ের বিকল্প কিছু ভাবছিনা। গত মৌসুমে আমারা (জাহিদ) স্বাধীনতা কাপের ফাইনালে ঢাকা আবাহনীকে হারিয়েই শিরোপা জিতেছিলাম,এবার ফাইনালে সেই আবাহনীকে মোকাবেলা করেই প্রথমবারের মত ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিততে চাই।
জাহিদ নিজ দল প্রসঙ্গে বলেন,এবার চট্টগ্রাম আবাহনী অভিজ্ঞ ও তরুন খেলোয়াড়দের সমন্বয়ে গড়া। মাঠে যারা ভালো খেলবে তারাই এগিয়ে থাকবে। এটা ফাইনাল, সুযোগ আসবে সবারই। ভুল করা যাবে না। আমি, মামুনুল ও গোলরক্ষক রানা ছাড়া অন্যরা এবার নতুন। তবে এই নতুনরা সবাই কিন্তু গত মৌসুমে ভালো পারফরমেন্স করেছে।
প্রতিপক্ষ প্রসঙ্গে জাহিদ বলেন, ঢাকা আবাহনী দেশের অন্যতম সেরা একটি দল। এই দলে বেশিরভাগ সিনিয়র ও অভিজ্ঞ খেলোয়াড় রয়েছে। তাছাড়া ইতিমধ্যে এএফসি কাপের ৬ টা আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে। ওই ধরনের টাফ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার পর লোকাল লিগের খেলাগুলো সহজ মনে হয়।
এব্যাপারে আমাদের ফুটবলাররা সতর্ক রয়েছে। আমি সতীর্থদের বলেছি ‘জান দিয়ে খেলবি। তোদের অনেক খাটতে হবে। ওরা নিজেদের সব উজার করে দিয়ে খেলবে বলেছে। তবে মাঠে আমাকেই বেশি দায়িত্ব নিতে হবে। আমি আর মামুনুল ২০ বছর এক সঙ্গে কাটাই। আমাদের মাঠ এবং মাঠের বাইরে দুই জায়গায়ই বোঝাপড়া চমৎকার। ফাইনালে সেটা আরেকবার দেখবেন। আমার নিজের উপরও আস্থা আছে। গত মৌসুমে প্রথম ট্রফিটি হাতে তুলেছিলাম। এবারও সেটা করবো ইনশাল্লাহ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ