ঢাকা, সোমবার 05 June 2017, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৯ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শ্রীলংকাকে ৯৬ রানে হারালো দ: আফ্রিকা

স্পোর্টস ডেস্ক : আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলংকাকে ৯৬ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ম্যাচে ওপেনার হাশিম আমলার সেঞ্চুরির পর ইমরান তাহিরের ৪ উইকেট শিকার করেন। লন্ডনের কেনিংটন ওভালে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২৯৯ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা। টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্বান্ত নেন শ্রীলংকার ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা। কাফ ইনজুরির কারণে এ ম্যাচে খেলতে পারেননি নিয়মিত অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। ব্যাটিং-এ নেমে দুই ওপেনার কুইন্ট ডি কক ও আমলা ৪৪ রানের জুটি গড়েন। ২৩ রান করে ডি কক ফিরে গেলে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস মেরামত করেন আমলা ও ফাফ ডু-প্লেসিস। দ্বিতীয় উইকেটে ১২৯ বলে ১৪৫ রান যোগ করেন আমলা-প্লেসিস জুটি। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে যে কোন উইকেট জুটিতে এটা ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা দলের তৃতীয় সর্বোচ্চ রান। ডু-প্লেসিস ৭০ বলে ৭৫ রানে আউট হন। তবে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২৫তম সেঞ্চুরির স্বাদ পান আমলা। ১৫১তম ইনিংসে ২৫তমবারের মতো তিন অংকে পা দিলেন আমলা। ফলে ভারতের বিরাট কোহলির ১৬২তম ইনিংসে ২৫তম সেঞ্চুরির রেকর্ড ভেঙ্গে যায়। সেঞ্চুরির পর ১০৩ রানে আউট আমলা। ১১৫ বলের ইনিংসে ৫টি চার ও ২টি ছক্কা হাকান এ তারকা ব্যাটসম্যান। এর আগে অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স ৪ বলে মাত্র ৪ রান করেন । শেষ দিকে ইনিংস টেনে নেন গেছেন ডেভিড মিলার, জেপি ডুমিনি, ক্রিস মরিস ও ওয়েন পার্নেল। মিলার ২২ বলে ১৮, ডুমিনি ২০ বলে অপরাজিত ৩৮, মরিস ১৯ বলে ২০ ও পার্নেল ৮ বলে ৭ রান করেন। শ্রীলংকার নুয়ান প্রদীপ ৫৪ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন। জয়ের জন্য ৩০০ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে নিরোশান ডিকবেলা ও উপুল তারাঙ্গা ৮.২ ওভারে উদ্বোধনী জুটিতে ৬৯ রান যোগ করেন। ৩৩ বল মোকাবেলায় ৫টি চার ও একটি ছক্কায় ৪১ রান করে ডিকবেলা মরনে মরকেলের শিকার হলে প্রথম উইকেট হারায় লংকানরা। এরপর থারাঙ্গা ইনিংস টেনে নিলেও অন্য প্রান্তে কেউই তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেননি। ৬৯ বলে ৫৭ রান করা থারাঙ্গাকে তাহির দ্বিতীয় শিকারে পরিনত করলে ২৫.২ ওভারে দলীয় ১৪৬ রানে ৬ উইকেট হারায় শ্রীলংকা। মুলত তারাঙ্গা আউট হওযার পরই ম্যাচ তেকে ছিটকে পড়ে লংকানরা। শেষ দিকে কুশল পেরোরা ছাড়া আর কেউই দাঁড়াতে পারেননি। ৬৬ বল খেলে ৫টি চারের সাহায্যে ৪৪ রানে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন পেরেরা। প্রথমে থারাঙ্গা, এরপর কাপুগেদারা (০) আসলে গুনারত্নে (৪) এবং নুয়ান প্রদীপসহ (৫) চার উইকেট শিকার ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন তাহির। শেষ পর্যন্ত ৪১.২ ওভারেই অলআউট হয়ে যায় শ্রীলংকা। এ ছাড়া মরিস শিকার করেন ২ উইকেট।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :দক্ষিণ আফ্রিকা : ২৯৯/৬, ৫০ ওভার। শ্রীলংকা: ২০৩/১০, ৪১.২ ওভার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ