ঢাকা, সোমবার 05 June 2017, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৯ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

টেন্ডার অনিয়মের অভিযোগে পৌর কাউন্সিলরদের ক্ষোভ

ছাগলনাইয়া (ফেনী) সংবাদদাতা: ছাগলনাইয়া পৌরসভার সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড ইজারা নিয়ে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে পৌর কাউন্সিলররা। গত মঙ্গলবার দুপুরে ছাগলনাইয়া পৌরসভার কাউন্সিলররা তাদের অফিসে স্থানীয় সাংবাদিকদের নিকট আনুষ্ঠানিকভাবে পৌর মেয়র ও সচিবের বিরুদ্ধে টেন্ডারসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে এই ক্ষোভের কথা জানান। কাউন্সিলরদের অভিযোগ নির্বাচনের পর থেকে পৌর মেয়র এম মোস্তফা তাদেরকে এড়িয়ে চলছেন। উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে তাদেরকে অংশ নেয়ার সুযোগ না দিয়ে মেয়র এবং সচিব সিন্ডিকেট করে যখন যা খুশি তাই করে চলেছেন। পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি না দিয়ে গোপনে নিজের পছন্দের লোক দিয়ে একের পর এক কাজ করছেন। সম্প্রতি  ছাগলনাইয়া পৌরসভার সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ডগুলি ইজারা দেয়ার ক্ষেত্রে নানা অনিয়মের আশ্রয় নেয়া শুরু করেছেন। বিশেষ সুবিধার বিনিময়ে নিজেদের পছন্দের লোককে সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড ইজারা দেয়ার জন্য মেয়র - সচিব সিন্ডিকেট চেষ্টা করছেন বলেও তারা অভিযোগ করেন। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী দরপত্র বিক্রির শেষ তারিখ ২৮ মে, দরপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ২৯ মে দুপুর ১টা এবং একই দিন বিকাল ৩টায় দরপত্র খোলা হয়। সর্বোচ্চ ২৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা দরদাতা হয়েছেন পূর্ব ছাগলনাইয়া গ্রামের আবুল বশরের পুত্র শরিফুল ইসলাম। কিন্তু সর্বোচ্চ দরদাতাকে ইজারা না দিয়ে তাদের পছন্দের লোককে ইজারা দেয়ার জন্য নানা তালবাহানা শুরু করেছেন। এসময় পৌর কাউন্সিলর মুন্সী নুর হোসেন, হাবিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম ভূঁঞা, মোঃ মোজাহারুল ইসলাম মুসা, সামছুল হক, সাইফুল ইসলাম স্বপন, আলেয়া বেগম ও হাসিনা আক্তার উপস্থিত ছিলেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টেন্ডার কমিটির আহবায়ক সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ূন কবির বলেন, ইজারার বিজ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ হয়েছে কিনা তাহা আমি জানিনা। ইজারার বিনিময়ের বিশেষ কোন সুবিধার বিষয়ও আমার জানা নেই। আপনারা সচিবের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।
পৌর সচিব মোহাম্মদ আবদুল হাই ইজারা দেয়ার বিনিময়ে বিশেষ সুবিধা নেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সর্বোচ্চ দরদাতা শরিফুল ইসলাম হলেও টেন্ডার কমিটি সিদ্ধান্ত নিবে ইজারা কাকে দেয়া হবে। মেয়র ইচ্ছে করলে যে কাউকে ইজারা দিতে পারেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ