ঢাকা, সোমবার 05 June 2017, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৯ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বগুড়ায় তিনটি গ্রেফতারি পরোয়ানা, তবু আ’লীগ সভাপতিকে ধরছেনা পুলিশ

বগুড়া অফিস: বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুল হকের নামে তিনটি গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকলেও তিনি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। প্রকাশ্যে পুলিশের সামনে দিয়ে চলাফেরা করাসহ দলীয় সভা সমাবেশ করছেন, অথচ পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছে না। আদালত থেকে তাকে গ্রেফতারের জন্য বারবার তাগাদা দেওয়া হলেও পুলিশ তামিল করছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।
জানা গেছে, প্রায় দেড় লাখ টাকার বকেয়া বিল ও জরিমানার টাকা আদায়ে বগুড়ার বিদ্যুৎ আদালত শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আজিজুল হকের নামে পৃথক তিনটি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। এর মধ্যে একটি মামলায় তিন বছর আগে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হলেও পুলিশ তা তামিল করেনি।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০৬ সালে ১৫জুন ৩১হাজার ১৯৭ টাকার বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে রফিকুল ইসলাম ও আজিজুল হকের বিরুদ্ধে মামলা করে বিদ্যুৎ বিভাগ। এতে জরিমানা করা হয় ৪ হাজার ৫০০ টাকা। মামলা নং-২০৮সি/০৬। হিসাব নং-২১৮০/এ। এ মামলায় আদালত ২০১৪ সালের ২৩এপ্রিল তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এরপর ৭৫৩১/এ হিসাব নম্বরের বকেয়া ১৯ হাজার ৪৬১ টাকা আদায়ে ১৬০সি/১৭ নম্বরে আরও একটি মামলা দায়ের করে বিদ্যুৎ বিভাগ। সেই মামলায় চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি ফের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। সর্বশেষ চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারি সেচপাম্পের বিদ্যুৎ বিলের ৭৩ হাজার ৬৪৭ টাকা এবং জরিমানা ১০ হাজার টাকা আদায়ে আরও একটি মামলা করা হয়। মামলা নং ২৩০সি/১৭, হিসাব নং-২৩০বি। এই মামলায় আদালত চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি আরও একটি গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। এ নিয়ে তিনটি মামলায় তার নামে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি রয়েছে। তিনটি মামলায় বকেয়ার পরিমাণ এক লাখ ৩৯ হাজার ৮০১ টাকা।
বগুড়ার বিদ্যুৎ আদালতের পেশকার আবদুল ওহাব জানান, আজিজুল হকের নামে তিনটি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। আদালত থেকে পরোয়ানা তামিল করার জন্য বারবার থানা পুলিশকে তাগাদা দিয়ে যাচ্ছেন কিন্তু তবুও তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছেনা।
শিবগঞ্জ বিদ্যুৎ সরবরাহ এলাকার আবাসিক প্রকৌশলী আবদুল রকিব মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বকেয়া আদায়ের জন্য আমরা বারবার আদালতের কাছে আবেদন জানাচ্ছি।
শিবগঞ্জ থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ খান জানান, আমি নতুন এসেছি। বিষয়টি জানা নেই। তবে অনুসন্ধান করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ