ঢাকা, সোমবার 05 June 2017, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ৯ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা

ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা: ঠাকুরগাঁও থেকে দূরত্বে বসবাস করায় স্থানীয় এক ব্যক্তির কারণে জমি বুঝে নিতে পারছেন না প্রকৃত মালিক।
ক্ষমতার দাপটে জোর পূর্বক ওই জমির উপড় নার্সারী আর দোকানপাট স্থাপন করে রাজত্ব চালাচ্ছে।
এ নিয়ে মালিক পক্ষ মামলা করে বেশ কয়েকবার আদালত থেকে রায় পেলেও তা অমান্য করছে ওই ব্যক্তি।
মামলা সুত্রে জানা যায়, বেশ কয়েক বছর আগে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আকচাঁ ইউনিয়নের দক্ষিণ ঠাকুরগাঁও গ্রামের আলহাজ্ব খয়ের উদ্দীনের কাছে ৪২০৫ ও ৪২০৮ দাগে ৭১ শতক, একই গ্রামের আরেক ব্যক্তির কাছে ১৩১২ ও ১৩২৭ দাগে ৪৫ শতক জমি ক্রয় করেন আখতার হোসেন ও আবুল কাইয়ুম মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।
জমি ক্রয় করার পর দখল নিয়ে ঘেরাবেড়া দিয়ে চাকুরীর জন্য দূরত্বে বসবাস করেন।
এই সুযোগে তৈয়ব আলী নামে এক ব্যক্তি কৌশলে ওই জমিতে অস্থায়ীভাবে দোকান ঘর নির্মাণ করে রাজত্ব করছে।
এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠক হলেও কোন সুরাহা হয়নি।
পরিশেষে জমির মালিক উপায় না পেয়ে তৈয়ব আলীর বিরুদ্ধে মামলা করে।
আদালত জমির কাগজ পত্র দেখে আখতার হোসেন ও আবুল কাইয়ুম মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর পক্ষে রায় দেয়। তারপরও জমি ছারছে না তৈয়ব আলী।
এ বিষয়ে আবুল কাইয়ুম মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, আমরা অশান্তি চাই না বলেই আদালতের আশ্রয় নিয়েছি। আদালত থেকে রায় পাওয়ার পরেও জমি বুঝে পাচ্ছিনা তৈয়ব আলীর কারনে। আমি প্রশাসনের সহয়োগীতা চাই। তৈয়ব আলী জানান, আমার বাবার জমি সেই সুবাদে আমি বসবাস করে আসছি। এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি মশিউর রহমান জানান, আমরা প্রকৃত জমির মালিককে অবশ্যই সহায়তা করবো তারা আসুক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ