ঢাকা, মঙ্গলবার 06 June 2017, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ১০ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

যশোরে পুলিশ নির্বিচারে মানবাধিকার ভূলুণ্ঠিত করছে -মাওলানা আজীজুর রহমান

 

জামায়াতে ইসলামীর যশোর জেলার সাবেক আমীর মাওলানা আজীজুর রহমান বলেন, যশোরে পুলিশ নির্বিচারে মানবাধিকার ভূলুণ্ঠিত করে চলেছেন। 

গতকাল সোমবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, গত ১ জুন সকাল ৮টায় বেনাপোল থানার কাগজপুকুর গ্রামের রাস্তা হতে ছাত্র শিবিরের যশোর জেলা সভাপতি রুহুল আমীন ও তার সাথী আবুল কাশেম ও তরিকুলকে প্রকাশ্যে এস আই জহুরুল আটক করেন। তাদের পরিবার ও স্বজনরা গণ্যমান্য ব্যক্তিদেরকে থানায় পাঠালে ঐ দারোগা বলেন ওসি সাহেব ঢাকা হতে সন্ধায় ফিরবেন তখন কথা হবে। অতঃপর ওসি সাহেব ফিরলে এখন তখন করে দিন পার করতে থাকেন। কিন্তু ঐ ছেলেরা কোথায় আছে তা স্বীকার করেন না। সকলের মধ্যে আতংক বিরাজ করতে থাকে। কারণ এই বেনাপোল বাজারেই বই কিনতে এসে ১৬ সনের ৩ আগষ্ট মহিষা ডাংগা গ্রামের শিবির কর্মী অনার্সের ছাত্র রেজওয়ানকে প্রকাশ্যে পুলিশ আটক করে। তবে এই তিন ছাত্র নেতাকে ৫ দিন নিখোঁজ রাখার পর গতকাল সন্ধ্যায় নাশকতার মামলা দিয়ে কোর্ট হাজতে দিয়েছেন। 

তিনি বলেন, গত রোববার যশোর সদরের বসুন্দিয়া গ্রামে আমিনা নামের এক আজীবন মানবসেবী মৃতপ্রায় বিধবা মহিলার জন্য ভাইয়ের আয়োজিত দোয়া অনুষ্ঠানে আগত ৩৭ জন রোজাদার মহিলাকে কোতয়ালী পুলিশ আটোক করেন। যাদের মধ্যে অনেকে আশীতিপর, অনেকে অন্তসত্বা। এছাড়াও পাঁচ জনের কোলে আছে মাসুম বাচ্চা। ৩০ ঘন্টা পর গতকাল দুপুরে ৩৪ জনকে বিষ্ফোরক দ্রব্য আইন মামলায় চালান দিয়েছেন। ৩ জন মহিলা এবং থানায় স্বজনদের জন্য খাদ্য দিতে আসা ৮ জন পুরুষকে এখনও আটক রেখেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ