ঢাকা,বৃহস্পতিবার 15 November 2018, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

যুক্তরাষ্ট্রে ‘অবৈধ জুয়া ব্যবসায়’ যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক: নাম পাল্টে টেক্সাসে অবৈধভাবে জুয়ার আসর চালানোর অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক এম এ রহিমকে গ্রেপ্তার করেছে এফবিআই।

গত ৫ মে টেক্সাসের উডসবরোতে তার মালিকানাধীন ‘হেরটিগস স্টোর’ থেকে রহিমকে (৪০) গ্রেপ্তার করা হয়। তিন দিন পর উডসবরোর কর্পাস ফেডারেল কোর্ট তাকে জামিনে মুক্তি দেয় বলে টেক্সাসের ইউএস এটর্নির মুখপাত্র এঞ্জেলা ডজ জানান।

জামিনের শর্ত অনুযায়ী রহিম টেক্সাসের বাইরে যেতে পারবেন না। তার শরীরে বিশেষ যন্ত্র বসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

১০ জুন নিউ ইয়র্ক থেকে প্রকাশিত একটি সাপ্তাহিকে খবরটি প্রকাশের পর প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে তা চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে।

রহিম নিউ ইয়র্ক ছেড়ে টেক্সাসের উডসবরো সিটিতে বসতি গেড়ে রে নিহাল নামে এই ব্যবসা শুরু করেন।

এফবিআই’র স্পেশাল এজেন্ট শাউনা ডানলপ সাংবাদিকদের জানান, গত ২৬ এপ্রিল ফেডারেল কোর্টের গ্র্যান্ডজুরিরা রহিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

এসব অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার সর্বোচ্চ ২৫ বছরের কারাদণ্ড এবং নামে-বেনামে থাকা সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হবে। ইতোমধ্যেই ন্যাশনাল ব্যাংকের স্থানীয় শাখায় তার একাউন্টের ৮১ হাজার ১৭১ ডলার ৩৫ সেন্ট জব্দ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের সময় রহিমের কাছে পাওয়া ১১ হাজার ৫৬২ ডলারও জব্দ করা হয়।

শাউনা ডানলপ বলেন, গত বছর থেকেই এফবিআই তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে। তদন্তের প্রাথমিক পর্যায়ে বেআইনিভাবে পরিচালিত একটি জুয়ার আসর বন্ধ করে দেওয়া হয়।

“এতে এফবিআই আশা করেছিল যে, তিনি অন্যগুলো নিজে থেকেই বন্ধ করে দেবেন। কিন্তু তা ঘটেনি।”

এ প্রসঙ্গে রিফুজিয়ো কাউন্টি শেরিফ পিঙ্কি গঞ্জালেজ সাংবাদিকদের বলেন, “আমরাও তাকে হুঁশিয়ার করেছিলাম। কিন্তু তিনি কর্ণপাত করেননি।”

মামলায় বলা হয়, মুদির দোকানের ভেতরে অবৈধভাবে জুয়ার আসর বসিয়ে প্রতি রাতে গড়ে দুই হাজার ডলার করে আয় করেন রহিম ওরফে নিহাল। এই অর্থ তিনি হুন্ডির মাধ্যমে অন্যত্র পাচার করেছেন। তার এই অবৈধ কর্মকাণ্ডে আরও কয়েকজন জড়িত।-বিডিনিউজ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ