ঢাকা, সোমবার 12 June 2017, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ১৬ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আগামী নির্বাচনে ইউএনডিপির কাছে ১০ ধরণের সহযোগিতা চায় নির্বাচন কমিশন

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ইউনাইটেড নেশন  ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম ইউএনডিপির কাছে ১০ ধরনের কারিগরি সহযোগিতার জন্য প্রস্তাব করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।
আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে ইউএনডিপির প্রতিনিধিদের সঙ্গে রোববার দুপুর ২টা ১০ মিনিট থেকে ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে ইসি এ প্রস্তাব দেয় বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।
তিনি জানান, ১৯৮৫ সাল থেকে ইউএনডিপি আমাদের সহযোগিতা করে আসছে। ২০০৫ সাল থেকে নির্বাচনে সরাসরি আমাদের সঙ্গে তারা সম্পৃক্ত। বৈঠকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তাদের কাছে ১০ ধরনের কারিগরি সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।
আগামী ২০ জুন জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে আমাদের আরেকটা বৈঠক আছে এবং তারা আমাদের কোন ধরনের সহযোগিতা করবে তা জুলাই মাসের শেষের দিকে চূড়ান্ত হবে।
যে ১০টি কারিগরি সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে- ১ কোটি ১৮ লাখ নাগরিকের হাতে এনআইডি দেয়া, আগামী ৫ বছর যারা ভোটার হবেন তাদেরকে এনআইডি দেওয়া, ইভিএম, ভোটারদের সচেতনার জন্য ভোটার এডুকেশন, নির্বাচনে ব্যবহারের জন্য অটো সিল যাতে বার বার তাতে কালি ব্যবহার করতে না হয়, স্মার্ট গোপন ভোট কক্ষ, স্মার্ট অমোচনীয় কালি, ট্রেনিং ম্যানুয়াল, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ ইত্যাদি।
সহযোগিতা করার ক্ষেত্রে তাদের কোনো শর্ত আছে কি না জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, কোনো শর্ত দিয়ে কারো কাছ থেকে কোনো ধরনের সহযোগিতা নেয়া হবে না। সহযোগিতা নিঃশর্তভাবে নেয়া হবে।
অনেকে বলছে বিদেশি কূটনীতিকরা কমিশনকে চাপ দিচ্ছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোনো চাপ নেই। নির্বাচন কমিশন স্বাধীন প্রতিষ্ঠান। যে কেউ দেখা করতে চাইলে কমিশন তাদেরকে এড়িয়ে যেতে পারে না। অনেকে কমিশনের সঙ্গে দেখা করছে, কমিশন এতে মনে করছে তাদের গ্রহণযোগ্যতা বাড়ছে। কোনো চাপ নেই। এটা রুটিন ওয়ার্ক।
রাজনৈতিক দলের সব ধরনের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী প্রতিনিধিত্ব রাখার বিষয়ে একটি চিঠি দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো যখন নিবন্ধন নেয়, তখন তাদের গঠনতন্ত্রে এটা থাকে যে, ২০২০ সালের মধ্যে তাদের প্রতিটি কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী প্রতিনিধিত্ব থাকবে। এটা তাদেরকে মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য এ বিষয়ে কমিশনে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। চিঠি আজকে যাবে। না গেলে দুয়েকদিনের মধ্যে যাবে। এটা আরপিওতে বলা আছে। তাই আগামী ১০ জুলাইয়ের মধ্যে রাজনৈতিক দলগুলোকে এ বিষয়ে কমিশনকে জানাতে বলা হয়েছে।
বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে ইউএনডিপির তিন সদস্যের কান্ট্রি ডিরেক্টর সুদীপ্ত মুখার্জি, ডেপুটি ডিরেক্টর মিস কিওকো ইউকোসুকো ও অ্যাডভাইজর ডেমোক্রেটিক গভার্নেন্স মিস শিলা তাসনিম হক উপস্থিত ছিলেন। তবে বৈঠক শেষে ইউএনডিপির প্রতিনিধি দলের সদস্যরা সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ