ঢাকা, সোমবার 12 June 2017, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ১৬ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিজেপি ছাড়লেন গোমাংস নয়

সংগ্রাম ডেস্ক : দল ছাড়লেন কিন্তু গোমাংস ছাড়লেন না। সম্প্রতি বিজেপি ছেড়ে দিয়ে দেশি বিয়ার আর গোমাংস দিয়ে উৎসব করেন ভারতের মেঘালয় রাজ্যের বিজেপির সদ্য সাবেক হওয়া তিন নেতা।
বার্নাড মারাক, বাচু মারাক এবং উইলভার গ্রাহাম ডাংগো নামের এই তিন নেতা গবাদি পশু নিধনের ওপর ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের জারি করা নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে মেঘালয়ের তুরা এলাকায় উৎসবের আয়োজন করলেন। শীর্ষ নিউজ।
তিনজনের বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, গোমাংস মেঘালয়ের মানুষের খাদ্য। তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আনা চলবে না।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকারের তিন বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রথমে বিচি-বিফ ফেস্ট করার পরিকল্পনা নেন তারা। কিন্তু বিজেপির নেতারা গোমাংসের নাম শুনেই তৎক্ষণাৎ সেই পরিকল্পনায় না করে দেন। এর পরই বিজেপি ছাড়েন ওই তিন নেতা।
স্থানীয় গারো ভাষায়, ভাত পচিয়ে বিয়ার  তৈরিকে বলে বিচি। সঙ্গে গরুর মাংস দিয়ে খাবারের আয়োজন করে ফেলেন তারা। বিজেপি থেকে বেরিয়ে এসে বিচি-বিফ ফেস্ট করে ওই তিন দলত্যাগী বিজেপি নেতা বলেন, তারা গারো খ্রিস্টান। জীবনযাত্রা ও খাদ্যাভ্যাস বদলানোর চেষ্টা কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না। কেন্দ্রের ওই নিষেধাজ্ঞা তারা মানবেন না বলেই এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।
 মেঘালয়ের তুরায় অনুষ্ঠিত বিচি-বিফ ফেস্টে যোগ দেন ওই এলাকার বহু প্রাক্তন বিজেপি কর্মীরাই।
ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, মেঘালয়ে গোমাংস ইস্যুতে গারো পাহাড় এলাকায় প্রায় পাঁচ হাজারের ওপর বিজেপি কর্মী ইতিমধ্যেই দল ছেড়েছেন। বর্তমানে মেঘালয়ে ৬০ সদস্যের বিধানসভায় ২৪টি আসন রয়েছে বিজেপির দখলে। সেই আসনের অনেক বিজেপি সদস্যই ইতিমধ্যে হুমকি দিয়ে রেখেছেন, গবাদি পশু নিধন নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার আইন প্রত্যাহার না করলে আগামী দিনে তারাও বিজেপি ছাড়বেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ