ঢাকা, বুধবার 14 June 2017, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২8, ১৮ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিদেশী প্রতিষ্ঠানের সাথে যৌথ চুক্তিতে তিনটি গ্যাস কূপ খনন করবে বাপেক্স

 

শাহেদ মতিউর রহমান : বিদেশী প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তিতে তিনটি নতুন কূপ খননের উদ্যোগ নিচেছ বাাকেক্স। আর এই কাজের জন্য ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে দুইশ’ ৭৪ কোটি টাকা। ইতোমধ্যে চুক্তি মূল্যে কার্যাদেশ প্রদানের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য মন্ত্রণালয়ে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির কাছে পাঠিয়েছে।

উল্লেখ্য গ্যাসের সংকট কাটাতে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনের লক্ষ্যে তিন কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ২শ’ ৭৪ কোটি টাকা) ব্যয়ে নতুন তিনটি কূপ খননের এই উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সেমুতাং দক্ষিণ-১, মাদারগঞ্জ-১ ও বেগমগঞ্জ-৪ অনুসন্ধান কূপ খননের জন্যে ইতোমধ্যে বাপেক্স এবং আজারবাইজানের প্রতিষ্ঠান সকার একিউএসের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

খনিজসম্পদ বিভাগের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, ২০২১ সালের মধ্যে প্রায় এক হাজার মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করার লক্ষ্যে বাপেক্স ১০৮টি কূপ খননের কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে ৫৩টি অনুসন্ধান কূপ ৩৫টি উন্নয়ন কূপ ও ২০টি ওয়ার্কওভার কূপ রয়েছে।

কিন্তু প্রচলিত ক্রয় সংক্রান্ত বিধি অনুসরণ করে নতুন গ্যাসক্ষেত্র অনুসন্ধান, আবিষ্কার ও উন্নয়ন করে জাতীয় গ্রিডে গ্যাস সরবরাহে দীর্ঘ সময়ের প্রয়োজন হবে।

এ কারণে গ্যাস উন্নয়ন তহবিল ও জ্বালানি নিরাপত্তা তহবিলের অর্থায়নে ২০১৬-২০১৭ এবং ২০১৭-২০১৮ সময়ের জন্য বাপেক্স কর্তৃক গৃহীত বিশেষ উদ্যোগের ১০টি প্রকল্প বিদ্যুৎ ও জ্বালানি দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) আইন-২০১০-এর আওতায় অনুমোদন গ্রহণ করা হয়েছে এবং এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব প্রক্রিয়াকরণ কমিটি (পিপিসি) গঠন করা হয়ছে।

এই ১০ প্রকল্পের আওতায় রূপকল্প-১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬ ও ৭ নামক প্রকল্পের অধীনে ২৩টি অনুসন্ধান, দুইটি উন্নয়ন, তিনটি ওয়ার্কওভারসহ মোট ২৮টি কূপ খনন করা হবে। ২৩টি অনুসন্ধান কূপের মধ্যে ১০টি অনুসন্ধান কূপ বাপেক্স নিজস্ব জনবলের মাধ্যমে খনন করবে এবং অপর ১৩টি অনুসন্ধান কূপ ঠিকাদারের মাধ্যমে টার্নকি ভিত্তিতে খনন করা হবে।

এ বিষয়ে খনিজসম্পদ বিভাগের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ ধরনের একটি প্রস্তাব সরকার ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রীসভার কমিটিতে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। সবকিছু নিয়ম মেনে প্রস্তাবনাটি পাঠানো হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে কমিটি প্রস্তাবটির অনুমোদন দেবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ