ঢাকা, বৃহস্পতিবার 15 June 2017, ০১ আষাঢ় ১৪২8, ১৯ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

অব্যাহত বর্ষণে মঠবাড়িয়া পৌরসভার সড়কগুলোর বেহাল অবস্থা

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা : বর্ষা মৌসুম শুরু হতে না হতেই মঠবাড়িয়া পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলোর বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে শহরে চলাচলে জনদুর্ভোগ চরম অবস্থায় পৌঁছেছে। এছাড়া গত দুইদিনে সাগরে লঘু চাপের প্রভাবে ও অব্যাহত ভারি বর্ষণে এলাকার জন জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রথম শ্রেনীর পৌরসভার প্রান কেন্দ্রের সড়কের ৫টি স্থানের পিচ পাথর উঠে গিয়ে বড় বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। অপরদিকে শহরে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ভারী যানবাহন চলাচলের ফলে রাস্তাঘাট চলাচলে অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে শহরের মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় গেট সংলগ্ন সড়ক, থানাপাড়া বেসিক ব্যাংক সম্মুখ সড়ক, আইনজীবী সমিতি ভবনের সম্মুখ সড়ক, মিরুখালী রোড, শেরে বাংলা পাঠাগারের সম্মুখ সড়কে বহু আগেই ইট পাথর উঠে গিয়ে বড় বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছিল। এরই মধ্যে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘু চাপের প্রভাবে গত দুই দিনের অব্যাহত ভারি বর্ষণে গর্তে হাটু পানি জমে সড়কে চলাচলে চরম দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়,  প্রায় এক লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত এ পৌর শহরে অপরিকল্পিত নানা স্থাপনা গড়ে ওঠলেও শহরের সড়কগুলো যেমন অপ্রশস্ত তেমনি এসব সড়কের অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থ্যার কারণে বর্ষার পানি অপসারণ না হওয়ায় খানাখন্দে দুই থেকে তিন ফুট পানি জমে থাকায় পানিবদ্ধতায় সড়কগুলো চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়াও শহরের হাইস্কুল থেকে থানাপাড়া হয়ে পাথরঘাটা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় আধা কিলোমিটার রাস্তার পিচ পাথর উঠে গিয়ে সড়কে পানিবদ্ধতা স্থায়ী রূপ নিয়েছে। পাশাপাশি  পৌরসভা থেকে পিরোজপুর বাসস্ট্যান্ড হয়ে কুয়েত প্রবাসী হাসপাতাল সড়কের করুণ চিত্র। পৌর শহরের দক্ষিণ বন্দর ওয়াপদা সড়কের অবস্থাও চলাচল অযোগ্য। এছাড়া মিরুখালী সড়কের শ্মশানঘাট এলাকা হয়ে আন্ধারমানিক পর্যন্ত পৌর শহরের সীমানার এক কিলোমিটার সড়কে পিচ পাথর নেই। এ সড়কটি এখন কাঁদা সড়কে পরিণত হয়েছে।
পৌর শহরের স্থায়ী বাসিন্দা ও মঠবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবদুস সালাম আজাদী, পৌর শহরের রাস্তাঘাট অলিগলি মিলিয়ে অন্তত ৬/৭ কিলোমিটার রাস্তা বেহাল যা সংস্কার করতে পৌর কর্তৃপক্ষ একদমই উদাসীন। যার ফলে লক্ষাধীক পৌরবাসী চলাচলে চরম দূভোর্গ পোহাচ্ছে।
এ ব্যাপারে পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আব্দুস ছালেক সড়কে খানাখন্দ ও গর্তের কারণে পৌরবাসীর দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে বলেন, বেহাল সড়কগুলো সড়ক ও জনপথ বিভাগের। ইতিমধ্যে এই বেহাল সড়ক সংস্কারের জন্য সড়ক ও জনপথ বিভাগ পিরোজপুর এর নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে অনুমতির আবেদন চাওয়া হয়েছে। অনুমতি পেলে শহরের বেহাল রাস্তা গুলো দ্রুত মেরামত করা হবে।
এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে বার বার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ