ঢাকা, বুধবার 21 June 2017, ০৭ আষাঢ় ১৪২8, ২৫ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফেনীতে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ

ফেনী সংবাদদাতা : ফেনীতে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের উদ্যোগে গত সোমবার দুপুরে শহরের একটি অডিটোরিয়ামে হতদরিদ্রদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেন ফেনী জেলা শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের প্রধান উপদেষ্টা ও ফেনী জেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীর একেএম সামছুদ্দীন। শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ফেনী শহর সভাপতি ফারুক আহম্মদ ভূঁইয়া আজাদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ফেনী জেলা সভাপতি মাওলানা নুরুল আফসার, শ্রমিক নেতা মুহাম্মদ জাকির হোসাইন ও আবুল কাসেম প্রমুখ। 

মিনিকেটের বস্তায় মোটা চাল

ফেনীতে সাম্প্রতিক সময়ে চালের বাজারে সংকট মারাত্মক রূপ ধারণ করেছে। বাড়তি দামে বিক্রির পাশাপাশি প্রতারণাও করছেন ব্যবসায়ীরা। মিনিকেটের বস্তায় বিক্রি হচ্ছে মোটা চাল। গতকাল  রোববার ফেনী শহরের ইসলামপুর সড়ক ও তাকিয়া রোডের চালের মোকাম ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, গত দুই মাস যাবত চালের বাজার এক ধরনের অস্থিরতা বিরাজ করছে। ক্রমান্বয়ে তা বেড়ে চলেছে। মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৫০ টাকা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, ফেনী শহরের কিছু ব্যবসায়ী চালের বাড়তি দামকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন নামিদামী চালের বস্তা যেমন রজনীগন্ধা মিনিকেট, বিশ্বাস মিনিকেট, মুকুট মিনিকেট ও পায়জাম সহ কয়েকধরনের চালের নতুন বস্তা সংগ্রহ করে। তারা রাতের আঁধারে চালের গুদামে মোটা চাল ও কম দামের চাল ওই বস্তায় মিনিকেট বলে বাজারজাত করছে। তা বিক্রি হচ্ছে বস্তাপ্রতি মিনিকেটের ১শ থেকে ১শ ৫০ টাকা কমমূল্যে। এতে ক্রেতা সাধারণ প্রতারিত হচ্ছে।

এসএসকে সড়কের আলম নমের এক ব্যবসায়ী জানান, বাজার থেকে ২ হাজার ৭শ ৫০ টাকায় মিনিকেট চাল এনে বাসায় দেখি মোটা চাল। পরে ওই ব্যবসায়ীকে জানানো হলে পরবর্তীতে নেয়ার সময় চিকন চাল দিয়ে দিবে বলে জানিয়েছেন।

বালু মহালে হামলার ঘটনায় মামলা

ফেনীর সোনাগাজীতে স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী রহিম উল্যাহর বালু মহালে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় শনিবার রাতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্ত সূত্র জানায়, ফেনী-৩ (সোনাগাজী-দাগনভূঞা) আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হাজী রহিম উল্যাহর আমিরাবাদ ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামস্থ মুহুরী প্রজেক্ট সংলগ্ন তার নিজস্ব বালু মহালে বৃহস্পতিবার রাতে ১১টি সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে ৩০-৪০ জনের একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা এসে হামলা চালায়। এসময় তারা তিনটি এ্যাস্কেবেটর মেশিন ভাংচুর ও বালু সরবরাহের কাজে নিয়োজিত একটি পিকআপ গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে। খবর পেয়ে সাংসদের লোকজন ঘটনাস্থলে যেতে চাইলে দুবৃর্ত্তরা কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণসহ বেশ কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলী ছোড়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করে বিভিন্নস্থানে অভিযান চালায়। পরে পুলিশ সোনাগাজী- ফেনী সড়কের ডাক বাংলা এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আরিফুল ইসলাম (২০), দলিলুর রহমান (১৯), নেজাম উদ্দিন (২০), ওয়াসকুরুনী সুজন (২১) কে আটক করে। তারা সবাই সোনাপুর গ্রামের বাসিন্দা বলে পুলিশ জানায়। এ ঘটনায় শনিবার রাতে গাড়ি চালক আবদুল্লাহ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলায় আমিরাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব নবী ফরহাদ, উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার আলম, তার বাবা ডা. মিয়াধন সহ ২০ জনের নাম উল্লেখ ও ৩০-৪০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করেন।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির এ ঘটনায় মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ