ঢাকা, বুধবার 21 June 2017, ০৭ আষাঢ় ১৪২8, ২৫ রমযান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কলাপাড়ায় বিধবার জমি থেকে মাটি কেটে তৈরি করছে ইট

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) সংবাদদাতাঃ পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নিলগঞ্জ ইউনিয়নের নবীপুর জনবসতি পুর্ণ এলাকায় ইটভাটা করে এক বিধবার জমি থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে ইট তৈরির বাধা দেয়ায় তাদের রাতের আধাঁরে হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেয়ার হুমকীর অভিযোগ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। কলাপাড়া নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম সাদিকুররহমান বৃহস্পতিবার মামলাটি আমলে নিয়ে অভিযুক্ত সুমন ও জহির উদ্দীন ওরফে তেল জহিরসহ ১০ জনকে কারণ দর্শাও আদেশ দিয়েছেন।মামলা সুত্রে জানা যায় উপজেলার নবীপুর এলাকার বিধবা তাছলিমা বেগম জেএল নং ৪১/৫,টুঙ্গিবাড়ীয়া মৌজার  ৪৫২নং খতিয়ানে ১.৩০ একর জমির মালিক বিদ্যমান থাকিয়া এবং পাউবোর বেড়িবাঁধ পাশর্^বর্তী অব্যবহৃত কুয়া লিজ নিয়ে ৭ বছরের শিশু সন্তান মোবারককে নিয়ে শান্তিপুর্ণ ভাবে মাছের ঘের তৈরি করে মাছ চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে।কিন্তু সুমন ও জহির উদ্দিনের ওরফে তেল জহির ওই বিধবার বসতবাড়ী সংলগ্নে এলাকায় ইটভাটা ও ডিজেল চালিত স-মিল বসিয়ে বিধবার লিজকৃত জমি থেকে জোরপুর্বক ১৮Ñ২০ ফুট গভীর মাটি কেটে ইট তৈরি করে।এতে বাধা দেয়ায় সুমন ও জহির উদ্দিন জহির’র নেতৃেত্ব একদল সন্ত্রাসী তাদের বসতবাড়ি থেকে উচ্ছেদ এবং রাতের আঁধারে হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেয়ার হুমকি দেয়। যে কোন সময় অভিযুক্তদের দ্বারা খুন জখমসহ জানমালের গুরুতর ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা বিদ্যমান থাকায় বিধবা ত্ছালিমা বেগমে’র মাতা মোসাঃ আম্বিয়া বেগম বাদী হয়ে কলাপাড়া বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ফৌজদারি কার্য বিধির ১০৭/১১৪ ও ১১৭ (সি) ধারায় এ মামলা আনয়ন করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ