ঢাকা, বৃহস্পতিবার 22 August 2019, ৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ জিলহজ্ব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

মসুলের একটি মসজিদ ধ্বংস করে দিয়েছে আইএস

অনলাইন ডেস্ক: ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় মসুল শহরে সেনাবাহিনীর অগ্রাভিযানের মুখে আরেকটি ভয়াবহ অপরাধ করেছে উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ। তারা নগরীর ৮০০ বছরের পুরনো আন-নুরি মসজিদ ধ্বংস করে দিয়েছে।

২০১৪ সালে এই মসজিদ থেকে নিজেদের কথিত খেলাফতের ঘোষণা দিয়েছিল আইএস জঙ্গিরা।

আরবি নিউজ চ্যানেল আল-আলম জানিয়েছে, ইরাকের সেনাবাহিনী যখন এই ঐতিহাসিক মসজিদটি থেকে মাত্র ৫০ মিটার দূরে ছিল তখন ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এটি ধ্বংস করে দেয় তাকফিরি জঙ্গিরা।  মসুল শহরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন ছিল আন-নুরি মসজিদ ও এটির ‘আল-হাদবা’ মিনারটি।

মসুল থেকে নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে আল-আলম জানিয়েছে, মসজিদটি ধ্বংস করার আগে দায়েশ জঙ্গিরা শহর থেকে পলায়নরত ৬০টি পরিবারের সব সদস্যকে ধরে এনে মসজিদের মধ্যে আটকে রাখে। বিস্ফোরণে হতভাগ্য এসব মানুষের সবাই নিহত হয়েছে বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

আন-নুরি মসজিদ ও এর মিনারটি ছিল শত শত বছর ধরে মসুল শহরের মর্যাদার প্রতীক

ইরাকি নেতৃবৃন্দের প্রতিক্রিয়া

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-এবাদি আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে দায়েশের এই অপরাধযজ্ঞের ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেছেন, নিজেদের খেলাফতের প্রতীক আন-নুরি মসজিদ ধ্বংস করে দায়েশ জঙ্গিরা আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের পরাজয় ঘোষণা করেছে।

ইরানের পার্লামেন্ট স্পিকার সালিম আল-জাবুরি বলেছেন, দায়েশ জঙ্গিদের উগ্র মতবাদ যে মারাত্মক ব্যাধিতে আক্রান্ত তা মসজিদ ধ্বংসের মাধ্যমে প্রমাণিত হলো। উগ্র এই জঙ্গি গোষ্ঠীর অপরাধযজ্ঞ সব কিছুর সীমা অতিক্রম করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। -পার্স টুডে

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ