ঢাকা, শুক্রবার 30 June 2017, ১৬ আষাঢ় ১৪২8, ৫ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আল-আকসা মসজিদে মুসলমানদের  প্রবেশ সীমাবদ্ধ করল ইসরাইল

 

সংগ্রাম ডেস্ক : ইসরাইলী পুলিশ মুসলমানদের জেরুজালেমে আল-আকসা মসজিদে প্রবেশের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা আরোপ করেছে। ইসরাইলী পুলিশ প্রধান পবিত্র স্থানে হামলার নিন্দা জানিয়ে এধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছেন। কিন্তু ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ বলছে, ইহুদী বসতি স্থাপনকারীদের ইসরাইলী বাহিনী ওই হামলা চালানোর অনুমতি দিয়েছিল।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ইসরাইলী পুলিশ ৪০ বছরের কম মুসলিমদের আল-আকসা মসজিদে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। এরপর সব বয়সী মুসলমানদের প্রবেশে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এক বিবৃতিতে আল-আকসা এ্যাফেয়ার্সের ডিরেক্টর জেনারেল আজাম  আল-খতিব এ তথ্য জানান। তিনি আরো জানান, এক দল চরমপন্থী ইহুদী বাসিন্দাদের হত্যার প্রতিবাদে আল-আকসা মসজিদের চারপাশে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু করে। তাদের সঙ্গে ইসারাইলী পুলিশ প্রধান ইউরাম লেভি ছিলেন। এধরনের বিক্ষোভ ও হট্টগোলের পর থেকে মুসলমিদের আল-আকসা মসজিদে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

মুসলিমদের জন্যে আল-আকসা মসজিদ তৃতীয় পবিত্রতম স্থান। ইহুদীরা দাবি করে তাদের প্রাচীন টেম্পল মাউন্ট একই এলাকায় অবস্থিত ছিল। ১৯৬৭ সালের মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধের পর ইহুদীরা পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয়। ১৯৮০ সালে তা ইহুদীদের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করলেও জাতিসংঘ বা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় তা স্বীকৃতি দেয়নি।

২০০০ সালের সেপ্টেম্বরে বিতর্কিত ইসরাইলী রাজনীতিবিদ এরিয়েল শ্যারন ওই স্থানটি ইহুদীদের পবিত্র ধর্মীয় স্থান হিসেবে পরিদর্শন করার পর ফিলিস্তিনীরা তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও প্রতিরোধ শুরু করে যা দ্বিতীয় ইনতিফাদা বলে পরিচিত। মুসলমানদের এ ধরনের প্রতিবাদে কয়েক হাজার ফিলিস্তিনী মারা গেছে। ইয়েনিসাফাক

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ