ঢাকা, বুধবার 5 July 2017, ২১ আষাঢ় ১৪২8, ১০ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ঝালকাঠির পল্লীতে জামাই’র রাখা ৩৫ কেজি গাঁজাসহ শ্বশুর আটক

 

ঝালকাঠি সংবাদদাতা : ঝালকাঠির সদর উপজেলার বিনয়কাঠি ইউনিয়নের নির্জন একটি গ্রামের নাম আশিয়ার। ওই গ্রামের আব্দুল মোতালেব চতুর্দিকে ফসলী জমির মধ্যে বসবাসের জন্য একটি ঘর তৈরী করেন। বরিশালের মেট্রোপলিটন এলাকার বাসিন্দা ঢাকা বিমানবন্দর এলাকায় ভাড়ায় গাড়ি চালক মুজিবুর রহমানের কাছে তার বড় মেয়ে বিবাহ দেন। বেশ কয়েকবছর পূর্ব থেকে জামাই মজিবর শ্বশুর বাড়িতে আত্মীয়তার সুবাদে বেড়াতে আসেন। ২/১ দিন থেকে আবার চলে যান। বৃদ্ধ আব্দুল মোতালেব শ্রমজীবী হওয়ায় সকালে ঘর থেকে বের হন সন্ধ্যা, আবার কখনও রাতে ফিরেন। মোতালেবের স্ত্রীই ঘরে বেশিরভাগ সময় ঘরে একা থাকে। মাঝে মধ্যে বড় মেয়ে (মজিবুরের স্ত্রী) বেড়াতে এসেও দীর্ঘদিন থাকে। কি করে অত কিছু খোঁজ নেয়ার সময় থাকে না মোতালেবের। রোববার বিকেলে মুজিবর ঢাকা থেকে শ্বশুর বাড়িতে আসে। এসময় ১৬টি মোড়কে কি যেন এনে চৌকির নীচে রাখে। সহজ সরল মোতালেবের স্ত্রীও কাউকে কিছু জানায়নি। সোমবার রাতে মোতালেবের কাছে জানায় তোমার জামাই কি যেন এনে চৌকির নীচে রেখেছে। তিনি মোড়কে পেঁচানো দেখে তা আর খুলেন নি। মঙ্গলবার সকাল ৯ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায় ঝালকাঠির ডিবি। ডিবি পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে অভিযানে ছিলেন এসআই আমিনুল ইসলামসহ একটি টিম। অভিযান চালানো হয় চতুর্দিকে পানিতে নিমজ্জিত ফসলী জমির মাঝখানে একটি টিনের ঘরে। এসময় আব্দুল মোতালেব কাজের জন্য বাইরে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। ঘর তল্লাশী ঘরে ডিবি পুলিশ। এসময় ১৬টি ইনটেক প্যাকেটে ৩৫ কেজি গাঁজাসহ আটক করা হয় আব্দুল মোতালেব (৭৫)কে। যার আনুমানিক মূল্য ৭ লক্ষাধিক টাকা। নিয়ে আসা হয় ঝালকাঠি পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় আনুষ্ঠানিক প্রেসব্রিফিংয়ে সিনিয়র অতিরিক্ত পুলিশ পুলিশ সুপার আব্দুর রকিব এমনভাবেই অভিযানের বর্ণনা দেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) এম এম মাহমুদ হাসান, ডিবি ওসি কামরুজ্জামান। অতিরিক্ত পুলিশ পুলিশ সুপার আব্দুর রকিব আরো জানান, বিভিন্ন মজিবুর এখানে মাদকের বড় চালান এনে ওই ঘরে মজুদ রেখে বিক্রি করতো। যা ছিলো মোতালেব’র অগোচরে। মোতালেব এর মেয়ে-জামাই এ ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে। মুজিবুরকে আটক করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে। একটি বিশেষ টিম এ অভিযান পরিচালনা করছে। এঘটনার সাথে শুধু মজিবর একাই জড়িত নয়, এটা একটি চক্রের কাজ। আমরা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সে আছি বলেও জানান তিনি। আটককৃত আব্দুল মোতালেব জানান, আমি কিছুই জানি না, তারা আমার ঘরে পেয়ে আমাকে নিয়ে এসেছে। এঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়েরের পরে আটককৃত মোতালেবকে আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেন দেয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ