ঢাকা, বৃহস্পতিবার 6 July 2017, ২২ আষাঢ় ১৪২8, ১১ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এবার ৫ লাখ মে. টন ক্রুড লবণ আমদানি করবে সরকার

 

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে এবং লবণের সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক রাখতে ৫ লাখ মেট্রিক টন অশোধিত (ক্রুড) লবণ আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বিদ্যমান আমদানি নীতিতে লবণ আমদানি নিষিদ্ধ হলেও লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় দেশে লবণ উৎপাদন কম হওয়ায় সংশ্লিষ্ট বিধান সাময়িক স্থগিত করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে কয়েকদিনের মধ্যে এ লবণ আমদানি করা হবে এবং শীঘ্রই এ সংক্রান্ত এসআরও জারি করা হবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে। 

গতকাল বুধবার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মো. আব্দুল লতিফ বকসী পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, ভোজ্য লবণের সরবরাহে ঘাটতি বা মূল্য যাতে বৃদ্ধি না পায় সেজন্য ভোক্তাদের স্বার্থে এ পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। সরকার নির্ধারিত আমদানিকারকরা এ লবণ আমদানির করতে পারবেন। আয়োডিনযুক্ত ভোজ্য লবনের উপযুক্ত মান নিশ্চিত করে লবন বাজারজাত করা হবে। 

শিল্প মন্ত্রণালয়ের হিসেবে এ বছর দেশে লবণের চাহিদা ১৫ দশমিক ৭৬ লাখ মেট্রিক টন। এর বিপরীতে দেশে লবণ উৎপাদন হয়েছে ১৩ দশমিক ৬৪ লাখ মে. টন। এতে দেখা যায়, দেশে লবণের ঘাটতি ২ দশমিক ১২ লাখ মে. টন। ঘুর্ণিঝড় মোরা’য় এবং বৃষ্টির কারণে লবণ উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সব দিক বিবেচনায় নিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় পাঁচ লাখ মে. টন অশোধিত লবণ আমদানির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। একই পদ্ধতিতে গত বছর দুই দফায় মোট আড়াই লাখ মে. টন ক্রুড লবন আমদানি করে সরকার।

সূত্র আরো জানিয়েছে, বর্তমান আমদানি নীতিতে লবণ আমদানি নিষিদ্ধ। দেশের মানুষের প্রয়োজনে উল্লেখিত বিধান সাময়িকভাবে স্থগিত করে এ লবণ আমদানি করা হচ্ছে। দেশের চাহিদা মোতাবেক লবণ উৎপাদনের জন্য লবণ চাষিদের সরকার সবসময় উৎসাহ দিয়ে আসছে। লবণ আমদানির ক্ষেত্রে দেশের লবণ উৎপাদনকারিদের স্বার্থ রক্ষা করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ