ঢাকা, বৃহস্পতিবার 6 July 2017, ২২ আষাঢ় ১৪২8, ১১ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বগুড়ায় অপহৃত এনজিও কর্মী উদ্ধার ॥ ৪ নারীসহ গ্রেফতার ৯

বগুড়া অফিস ঃ বগুড়ায় মুক্তিপনের দাবিতে অপহৃত এনজিও কর্মীকে ৪০ ঘন্টা পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ৪ নারীসহ ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো- সুলতান, ফুয়াদ হাসান মানিক, মনির, পিয়াস, আব্দুল গফুর, স্বপ্না বেগম, মালা বেগম, শারমিন আকতার ও রেখা বেগম। বুধবার সকালে শহরের মালতীনগর এলাকার একটি বাসায় অপহরণকারীদের আস্তানা থেকে পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধার করে। অপহৃত জাহিদুল ইসলাম গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার চর বালুয়া গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে। তিনি এসকেএস ফাউন্ডেশন নামের একটি এনজিও’র বগুড়ার ঘোড়াধাপ শাখায় কর্মরত আছেন।

জানাগেছে, সোমবার সন্ধ্যায় জাহিদুল ইসলাম শহরতলীর মাটিডালী মোড়ে ব্যক্তিগত কাজে আসেন। এসময় দুইটি মোটরসাইকেল যোগে অজ্ঞাত কয়েক যুবক তাকে সেখান থেকে তুলে নিয়ে যায়। ওই রাতে অপহরণকারীরা মোবাইল ফোনে জাহিদুলের স্ত্রীর কাছে তিনলাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। স্বামীকে জীবিত উদ্ধার করতে জাহিদুলের স্ত্রী রিনা বেগম বিকাশের মাধ্যমে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত কয়েক দফায় ১ লাখ ১৬ হাজার টাকা দেন। এতেও জাহিদুলকে মুক্তি না দিলে মঙ্গলবার দুপুরে তার বড়ভাই হামিদুল হক বগুড়া সদর থানায় অভিযোগ করেন। এরপর থেকেই পুলিশ অভিযানে নামে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পুলিশ শহরের আটাপাড়া এলাকা থেকে অপহরণের সাথে জড়িত সুলতান ও ফুয়াদ হাসান মানিক নামের দুই যুবককে গ্রেফতার করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ি রাতে শহরতলীর সুলতানগঞ্জ হাইস্কুল মাঠে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় পুলিশ আরো দুই যুবককে গ্রেফতার করে। বুধবার সকালে গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শহরের মালতিনগর এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত জাহিদুলকে উদ্ধার করে এবং নারীসহ আরো ৫ জনকে গ্রেফতার করে। এসময় পুলিশ ওই বাসায় তল্লাশী চালিয়ে মুক্তিপন হিসেবে আদায় করা  টাকার মধ্যে ৮০ হাজার টাকা উদ্ধার করে। এঘটনায় অপহৃতের ভাই হামিদুল হক বাদী হয়ে বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরির্দশক (তদন্ত) আসলাম আলী জানান, গ্রেফতারকৃতরা সংঘবদ্ধ একটি চক্র। এরা নারীর টোপ দিয়ে বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজনকে নিয়ে এসে মোটা অংকের টাকা আদায় করে থাকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ