ঢাকা, বৃহস্পতিবার 6 July 2017, ২২ আষাঢ় ১৪২8, ১১ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কেশবপুরে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারে দু‘শতাধিক কৃষকের সাফল্য

 

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : বিষমুক্ত সবজি চাষে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার করে যশোরের কেশবপুর উপজেলার দুটি  গ্রামের দু‘শতাধিক কৃষক সাফল্য দেখিয়েছে। চলতি খরিপ-১ মৌসুমে এ দুই গ্রামে প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় কুমড়া জতীয় ফসলের মাছি পোকা দমনে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারের ওপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। গত মঙ্গলবার প্রধান অতিথি হিসেবে জনপ্রশান প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক এমপি সরেজমিনে মাচা পদ্ধতির কুমড়া ক্ষেত পরিদর্শন করেন। এখানকার উৎপাদিত কুমড়ার সুনাম রয়েছে দেশের সর্বত্রই। 

কৃষি অফিস জানায়, কেশবপুরের মজিদপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে বেগুন, কুমড়া, শিম, বরবটিসহ নানা ধরনের সবজি আবাদ হয়ে আসছে। কিন্তু এসব সবজিতে উচ্চ মূল্যের কীটনাশক ব্যবহারের পরও খরচের টাকা উঠতো না বলে কৃষকরা জানিয়েছেন। এ অবস্থায় উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শে ওই ২ গ্রামের দু’শতাধিক কৃষক ১শ’ ৭০ বিঘা জমিতে নিজ উদ্যোগে মাচা পদ্ধতির কুমড়া চাষে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার করে লাভবান হয়েছেন। 

বাগদা গ্রামের কৃষক মশিয়ার গাজী, সাঈদ মোড়ল জানান, তারা গত ৪ বছর ধরে মাচা পদ্ধতিতে কুমড়ার আবাদ করে আসছেন। এ পদ্ধতির আবাদ লাভজনক হওয়ায় দিন দিন চাষীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। কিন্তু কুমড়া ক্ষেতে উচ্চ মূল্যের কীটনাশক ব্যবহারের পরও ক্ষতিকর পোকা দমনে ব্যর্থ হয়ে তারা এ ফসল আবাদ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে শুরু করেন। এমতাবস্থায় তারা উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শে কুমড়া ক্ষেতে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার করে বিঘা প্রতি (৩৩ শতাংশ) ১০/১২ হাজার টাকা খরচ করে ৬০ থেকে ৭০ মণ ফলন পেয়েছেন। যার মূল্য ৪০ থেকে ৪৫ হাজার টাকা। তবে এ উপজেলায় সবজি সংরক্ষণে কোন কোল্ড স্টোরেজ না থাকায় তারা আর্থিকভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে থাকেন বলে কৃষকরা দাবি করেন।   

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মহাদেব চন্দ্র সানা বলেন, সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারের ওপর মাঠ দিবসের উদ্দেশ্য হলো মাচা পদ্ধতির কুমড়ার আবাদ সম্প্রসারণ, কৃষকদের আগ্রহ সৃষ্টি, উন্নত জাতের সাথে পরিচয় ঘটানোসহ নতুন প্রযুক্তি চাষীদের মাধ্যমে মাঠে বাস্তবায়ন করা। 

সাধারণত কুমড়া রোপণের ৪৫ দিনেই ফল আসা শুরু হয় এবং ৯০ দিনেই কৃষকের ঘরে ওঠে। এ পদ্ধতিতে খরচ কম, ফলন বেশী পাওয়া যায়। সেক্স ফেরোমন ফাঁদ হলো স্ত্রী মাছি পোকার গায়ের গন্ধের অনুরূপ জৈবিক পদার্থ দিয়ে তৈরি একটি টোপ (লিয়র)। যা পোকার যৌন মিলনের জন্য পুরুষ পোকা আকৃষ্ট হয়ে ফাঁদের সাবান মিশ্রিত পানিতে পড়ে মারা যায়। 

এ উপলক্ষে গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে কৃষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ কাজী হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবসে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও কেশবপুরের সংসদ ইসমাত আরা সাদেক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুবকর আবু, সহকারি কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান। অন্যদের মধ্যে উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা অনাথ বন্ধু দাস, নজরুল ইসলাম, দ্বিপজয় বিশ্বাস, কৃষক মানিক দত্ত প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ