ঢাকা, সোমবার 10 July 2017, ২৬ আষাঢ় ১৪২8, ১৫ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে দ:কোরিয়া গেল অ-১৬ কিশোরী ফুটবল দল

স্পোর্টস রিপোর্টার : এএফসি কাপ অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা দলকে মূল লড়াইয়ের আগে আরো অভিজ্ঞ করে তুলতে এবার দক্ষিণ কোরিয়া গেল বাংলাদেশ দল। সেখানে চারটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে গতকাল রোববার রাতে কোরিয়ার পথে রওনা হয়েছে। এর আগে জাপান দুবার,  চীন ও সিঙ্গাপুর সফরের ভুলগুলো কতটা শুধরে নেয়া গেছে, শেখানো কৌশল মেয়েরা কতটা আয়ত্ত করতে পেরেছেন,  সেগুলোই শেষ সময়ের প্রস্তুতিতে খুটিয়ে দেখতে চান কোচ। গতকাল বাফুফে সংবাদ সম্মেলন রুমে আয়োজিত সম্মেলনে কোচ বলেন, শক্তিশালি গ্রুপেই আমাদের খেলতে হবে এএফসি কাপে। আগামী সেপ্টেম্বরে থাইল্যান্ডে হতে যাওয়া চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের গ্রুপে আছে প্রতিযোগিতাটির গত আসরের চ্যাম্পিয়ন উত্তর কোরিয়া,  রানার্সআপ জাপান ও অস্ট্রেলিয়া। কোরিয়াতে চার ম্যাচের প্রথমটি আজই অনুষ্ঠিত হবে। কোরিয়া পৌঁছানোর পরেই দেশটির অনূর্ধ্ব-১৬ দলের বিপক্ষে ম্যাচ খেলেত হবে। ছোটন অবশ্য ভ্রমণ ক্লান্তি নিয়ে ভাবছেন না। বলছেন,  পেশাদার হতে হলে এতটুকু ধকল সহ্য করতে হবে মেয়েদের। জাতীয় দলের মেয়েদের সাফ ফুটবলের রানার্সআপ করানো এই কোচের বর্তমান ভাবনা পজিশন বদল করিয়ে খেলানোর কৌশলের সঙ্গে স্বপ্নরা কতটুকু অভ্যস্ত হলো সেটা দেখা।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কোচ বললেন,  “আমরা জাপানে যে দলগুলোর সঙ্গে খেলেছি,  ওখানে আমরা ফর্মেশন নিয়ে কাজ করেছি। আমাদের মেয়েরা একটা পজিশনে খেলে অভ্যস্ত অন্য পজিশনে খেলতে বললে তারা অস্বস্থি অনুভব করে। আমরা ওগুলো নিয়েও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি। আমি মনে করি, যেহেতু কোরিয়ার অনূর্ধ্ব-১৬ দলের বিপক্ষে এবার খেলব,  জাপানে যে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি তার ফলটা আমরা পাবো।তালিকায় ফরোয়ার্ড তিনজন কিন্তু জাপানে আমরা সানজিদাকে (মিডফিল্ডার) সেন্ট্রাল ডিফেন্সে শামসুন্নাহারের সঙ্গে সাইড-ব্যাক হিসেবে খেলিয়েছি। কৃষ্ণা সবসময় নাম্বার টেন হলেও সে এখন ডিপে (একটু নিচে নেমে) খেলছে। আমাদের সুবিধা হচ্ছে আমাদের বিভিন্ন খেলোয়াড় বিভিন্ন পজিশনে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। শিষ্যদের সামর্থের ওপর আস্থা নিয়ে কোচ বললেন, “অনূর্ধ্ব-১৬ এর কোয়ালিফাইয়ের সময় মেয়েদের যে শক্তি,  স্টেমিনা ছিল,  এখন তা তার চেয়ে অনেক ওপরে। আমি মনে করি,  শারীরিকভাবে মেয়েরা আগের চেয়ে অনেক শক্তিশালী এবং টেকনিক্যালি ও টেকটিক্যালি আরও ভালো হয়েছে।”
এদিকে অধিনায়ক কৃষ্ণা রানী বললেন, “আমরা জাপানে দুইবার,  চীন ও সিঙ্গাপুরে একবার করে গেছি। এবার আমরা কোরিয়া যাচ্ছি। সেখানে ভালো কিছু করার চেষ্টা করব। জাপানে যেহেতু কিছু ভুলত্রুটি ছিল; কোরিয়াতে সেগুলো শুধরে নেয়ার চেষ্টা করব। এজন্য আমরা অনেক কঠিন পরিশ্রম করেছি। সবার আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। আমরা যে যার পজিশনে খেলি,  সেখানে ধরে খেলার আত্মবিশ্বাসও বেড়েছে।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ