ঢাকা, সোমবার 10 July 2017, ২৬ আষাঢ় ১৪২8, ১৫ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আদমদীঘিতে গভীর নলকূপের বিদ্যুতের মিটার চুরি

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা : পল্লী বিদ্যুতের তিন ফেসের গভীর নলকূপের মিটার চুরি হয়ে গেছে। কিন্তু চোর চিরকুটে লিখে রেখে গেছে মুঠোফোনের বিকাশ নাম্বার। গত শুক্রবার রাতে এমনই এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার কেশরতা গ্রামের পশ্চিম মাঠে।
জানা যায়, বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সদর ইউনিয়নের কেশরতা গ্রামের আলহাজ্ব আবুল শেখ, করিম শেখ, হামিদুল প্রাং, শহিদুল ইসলাম সহ ১০ জন মিলে গেল বছরে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ নিয়ে একটি গভীর নলকূপ বসিয়ে ইরি-বোরো ও আমন ধান ক্ষেতে পানি সেচ দিয়ে আসছে। গত শুক্রবার রাতে চোর ওই গভীর নলকূপের মিটার চুরি করে নিয়ে যায়। কিন্তু আজব কান্ড হলো চোর চুরি করে নিয়ে গেছে মিটার, আর চিরকুটে লিখে রেখে গেছে বিকাশ নাম্বার। রেখে যাওয়া  বিকাশ নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে চোররা ওই বিকাশ নাম্বারে ১০ হাজার টাকা দাবি করে এবং বলে টাকা দিলেই মিটার পেয়ে যাবেন। আবার কখনো বলে বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যানেরা যাবে মিটার লাগিয়ে দিবে তাদের হাতে টাকা দিলেই হবে। গত বছরও অত্র এলাকা থেকে পল্লী বিদ্যুতের ৪/৫ টি মিটার এভাবে চুরি করে নিয়ে গিয়ে বিকাশে টাকা আদায় করেছে বলে জানা যায়। দিন দিন অত্র এলাকার গভীর নলকূপের মিটার চুরি বৃদ্ধি পাওয়া এবং বিকাশ নাম্বারে টাকা আদায় করায় অন্যান্য গ্রাহকদের মাঝে চাপাক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এই ভাবে অভিনব কায়দায় মিটার চুরি করে চোররা হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে কেউ লিখিত অভিযোগ করছে না। কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না তাই দুষ্কৃতকারীরা পর্দার আড়ালেই থেকে যাচ্ছে। চুরিও কমছে না। বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম মামুনুর রশিদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।
এব্যাপারে আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি শওকত কবির বলেন, গভীর নলকূপের বৈদ্যুতিক মিটার চুরির ব্যাপারে থানায় এখনো কোন লিখিত অভিযোগ হয়নি। কেহ অভিযোগ করলে তা আমরা খতিয়ে দেখবো।
২ জন গ্রেফতার
বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহার পাপ্পী রাইচ মিল থেকে ৫ লাখ টাকা মুল্যের একটি ট্যাক্টর (কাকড়া) চুরির ঘটনায় থানা পুলিশ চুরি সন্দেহে দুপচাঁচিয়ার চ্যাংগা পালপাড়ার অমল চন্দ্রের ছেলে গনেশ চন্দ্র পাল ও ডিমশহর এলাকার আব্দুস সামাদের ছেলে সুলতান (২২) কে গ্রেফতার করে আাদালতে প্রেরণ করেছেন।
উল্লেখ্যঃ আদমদীঘির সান্তাহার পাপ্পী রাইচ মিল এলাকায় ট্যাক্টর (কাকড়া) রেখে চালক বাড়ি যায় ওই রাতে ট্যাক্টরটি চুরি হয়। এঘটনায় ট্যাক্টরের মালিক আবুল হাসনাত বাদী হয়ে গত ৯ মার্চ অজ্ঞাত নামা উলে¬খ করে থানায় একটি চুরি মামলা দায়ের করেন।
৩ মাদকব্যবসায়ী গ্রেফতার
বগুড়ার আদমদীঘি থানা পুলিশ গত শনিবার সন্ধায় অভিযান চালিয়ে এক নারীসহ ৩ মাদকব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছেন। এব্যাপারে এসআই আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে থানায় মাদকদ্রব্য আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ জানায়, আদমদীঘির সান্তাহার চা-বাগান এলাকার ছবদুল হোসেনের ছেলে মাদক সম্রাট নজরুল ইসলাম নজু ও তার স্ত্রী রহিমা খাতুন (শুটকি) এবং একই এলাকার কালাম হোসেনের ছেলে মিনহাজুল ইসলাম (২৮)  মাদক বিক্রি করছে এমন গোপন সংবাদে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে সান্তাহার চা বাগান মন্দিরের সামনে থেকে আড়াইশ গ্রাম গাঁজা উদ্ধারসহ তাদের গ্রেফতার করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ