ঢাকা, মঙ্গলবার 11 July 2017, ২৭ আষাঢ় ১৪২8, ১৬ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বৌ-শাশুড়ির হামলায় আহত গৃহবধূ

শাহরাস্তি (চাঁদপুর) সংবাদদাতা: বৌ-শাশুড়ির নির্মম শারীরিক আর মানসিক নির্যাতনে অতিষ্ঠ এক প্রবাসীর স্ত্রী। শ্বশুড় পরিবারের সংঘবদ্ধ হামলায় গুরুতর আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে সে। ঘটনাটি গত ১০ জুন শনিবার বিকেল ৩টায় চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার সোনাপুর গ্রামে ঘটে।
জানা যায়, এই গ্রামের বাদশা কেরানী বাড়ির আমিন উল্যাহর স্ত্রী জাহানার বেগম ও তার বড় পুত্র ইব্রাহীম খলিলের স্ত্রী নূরজাহান বেগম যৌথভাবে ছোট পুত্র ইউছুফের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদাউসকে কারণে অকারণে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছে। বিষয়টি এলাকায় জানা জানি হলেও শ্বাশুড়ি জাহানারা বেগম ও ভাসুর ইব্রাহীম খলিল কোন পাত্তা দেননি। বরং এলাকার লোকজনের সাথে রুঢ় আচরণ করে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছিলেন। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন সময় ইউছুফের স্ত্রী জান্নাতের উপর চলতো শারিরীক নির্যাতনের মোহড়া।
এ ব্যাপারে আহত গৃহবধু জান্নাতুল ফেরদাউস বলেন, আজ থেকে ১৭ বছর পূর্বে আমার বিয়ে হয়। বর্তমানে আমি ২ পুত্র ও ১ কন্যাসন্তানের জননী। বিয়ের এক-দেড় বছর পর থেকেই বিভিন্ন কারণে অকারণে আমার উপর চলতো মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন। তিনি আরও বলেন, আমার ভাসুর ও তার পুত্র নাহিদও আমার গায়ে হাত তুলেছে। যে সমাজে আমার শ্বশুরালয় রয়েছে সেখানে মানবিক এবং উন্নত মনমানসিকতা সমাজ ব্যবস্থা নেই। যে কারণে দেবর-ভাসুররাও পর স্ত্রীর গায়ে হাত তুলতে কুন্ঠা বোধ করে না।
শ্বাশুড়ি জাহানারা বেগম বলেন, ছেলে আমার আর ছেলে প্রবাসে থাকায় তার স্ত্রী আমার নয়। সে কোথায় যায় কি করে তা দেখা কিংবা জানার দরকার নেই। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মুখ খারাপ করেছে বলে তাকে প্রহার করা হয়েছে। এ সংসারে থাকতে হলে সভ্য শান্ত হয়ে থাকতে হবে।
ভাসুর ইব্রাহীম খলিল বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগটি সঠিক নয়। আমি কেন আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে মারতে যাব।
এলাকাবাসী বলেন, শাশুড়ি জাহানারা বেগমের নেতৃত্বে তার বড় পুত্র, পুত্রবধূ, নাতি ও কন্যারা বিভিন্ন সময় সংঘবদ্ধ হয়ে ছোট পুত্র ইউছুফের স্ত্রীর উপর হামলা চালাতো। এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করে বেশ ক’বার স্থানীয় সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে বৌ-শাশুড়ির  আপোষের সীমা রেখাই আবদ্ধ ছিল। বর্তমানে তারা যথেষ্ট বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার মাধ্যমে কঠোর শাস্তির দাবি জানান তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ