ঢাকা, বুধবার 12 July 2017, ২৮ আষাঢ় ১৪২8, ১৭ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

লোহাগাড়ায় প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত॥ ২ পাইলট অক্ষত

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা : চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় একটি প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। বিধ্বস্তের পর বিমানটিতে আগুন ধরে গেলেও তার আগেই প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থী পাইলট প্যারাসুটের সাহায্যে নেমে আসায় দুজনই অক্ষত আছেন।

 প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে একটি বিমান হতে ২ জন পাইলটকে নিচে নেমে আসতে দেখেন তারা। নীচে নামতে গিয়ে গাছের ডালে আটকা পড়ে পরে নামতে সক্ষম হন। অপরজন নীচে বাধা ছাড়াই নামতে সক্ষম হন। এর পরপরই ৩ কিলোমিটার দূরে বিমানটি কেইচ্চাবন এলাকার পাহাড়ের উপর বিধ্বস্ত হয়। বিধ্বস্ত বিমানের বিকট শব্দে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। বিধ্বস্ত বিমানটি সম্পূর্ণই পুড়ে যায়। এমনকি এর আশপাশ এলাকার বেশ কয়েকটি গাছও আগুনে পুড়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তিনটি উদ্ধারকারী হেলকিপ্টার এসে পৌঁছে। তন্মধ্যে একটি হেলিকপ্টার দুই পাইলটকে উদ্ধার করে সাথে সাথে চলে যায়। চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সাথে সাথে স্থানীয় থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। 

লোহাগাড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহজাহান জানিয়েছেন, উইং কামান্ডার নাজমুল ও স্কোয়াড্রন লিডার কামরুল হাসান নামের দুই পাইলট অক্ষত অবস্থায় আছে। ঘটনার পরপরই লোহাগাড়া থানার পুলিশ দুর্ঘটনাকবলিত বিমানের আশেপাশে অবস্থান নেয়। বড়হাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জুনাঈদ জানিয়েছেন, ঘটনার সময় আমি নিজ এলাকাতেই ছিলাম। বিমান দুর্ঘটনার খবর পেয়ে এলাকার লোকজন নিয়ে দুই পাইলটকে উদ্ধার করি। এদিকে মফস্বল এলাকায় বিমান দুর্ঘটনার খবর পেয়ে তা দেখতে শত শত লোক ভিড় করছে। 

জানা গেছে, প্রশিক্ষণে ব্যবহৃত ইয়াক-১৩০ নামের বিমানটি এর আগে চট্টগ্রাম জহুরুল হক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ