ঢাকা, শনিবার 15 July 2017, ৩১ আষাঢ় ১৪২8, ২০ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চিনি তেল টিসিবি’র গুদামে মজুদ

খুলনা অফিস : রমযান মাসে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)’র মাধ্যমে রমযানের জন্য সরবরাহকৃত ৫০ হাজার লিটার অবিক্রিত সয়াবিন তেল ও ১৯০ মেট্রিক টন চিনি ও মসুরির ডাল টিসিবির গুদামে মজুদ রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ১০ মেট্রিক টন চিনি ও ১৮০ মেট্রিক টন মসুরির ডাল রয়েছে।

সূত্র জানায়, রমযান গত মাসে জনসাধারণের মাঝে পণ্য সরবরাহ করে টিসিবি। খুলনা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে ভিত্তিতে টিসিবি পণ্য সরবরাহ করা হয় আঞ্চলিক কার্যালয়গুলোতে। আর আঞ্চলিক কার্যালয়গুলো পণ্য জনসাধারণের মধ্যে নিজস্ব বিক্রয় কেন্দ্র ও ডিলারদের মাধ্যমে বিক্রি করে থাকে। কিন্তু সদ্য সম্পন্ন রমযান মাসে টিসিবি’র খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয়ে গণহারে জনগণের মাঝে পণ্য বিক্রি না করায় উল্লেখিত পণ্য মজুদ রয়ে গেছে। যা সংরক্ষণ করা হয়েছে টিসিবি’র নির্ধারিত গুদামে। আর সংরক্ষিত এই পণ্য আগামী কুরবানির ঈদে জনসাধারণের মাঝে বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন টিসিবি’র খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের অফিস প্রধান।

টিসিবি খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের অফিস প্রধান মো. রবিউল মোর্শেদ বলেন, আঞ্চলিক কার্যালয়গুলোর পণ্য সরবরাহের জন্য কোন চাহিদা থাকে না। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও টিসিবি প্রধান অফিসের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে পণ্য আঞ্চলিক কার্যালয়ে প্রেরণ করে। কিন্তু এ বছর জনসাধারণের মাঝে গণহারে সরবরাহ না করায় কিছু পণ্য মজুদ রয়েছে। যা আগামী কুরবানির ঈদে সরবরাহ করা হবে।

জানা গেছে, খুলনায় টিসিবি’র আঞ্চলিক কার্যালয়ে এ বছর দু’টি পণ্য দুই ধাপে সরবরাহ করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। আর দুইটি পণ্য প্রথম ধাপে সরবরাহের পরও সংরক্ষিত রয়েছে। এ বছর রমযান মাসে টিসিবি খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে চিনি সরবরাহ করা হয়েছে ৩২৫ মেট্রিক টন, সয়াবিন তেল ১ লাখ ৫০ হাজার লিটার, ছোলা ৩শ’ মেট্রিক টন ও মসুর ডাল ১৫০ মেট্রিক টন। আঞ্চলিক কার্যালয়ের নিবন্ধিত ৪৮৮ জন ডিলার ও টিসিবির নিজস্ব বিক্রয় কেন্দ্রে ও ট্রাকে করে এ পণ্য জনসাধারণের মাঝে বিক্রি করা হয়েছে। এদিকে এসব পণ্যের মধ্যে অবিক্রিত ১০ মেট্রিক টন গুদামে মজুদ রয়েছে। প্রথম ধাপে ছোলা সরবরাহের সমপরিমাণ বিক্রি করেছে টিসিবি। সয়াবিন তেল সরবরাহ করেছে ২ লাখ লিটার, তার মধ্যে মজুদ রয়েছে ৫০ হাজার লিটার। এদিকে মসুরির ডাল সরবরাহ করেছে ৩৩০ মেট্রিক টন। বিক্রি করার পর মজুদ রয়েছে ১৮০ মেট্রিক টন। গত ১৫ মে থেকে টিসিবি পণ্য বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়ে শেষ করে গত ১৮ জুন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ