ঢাকা, বুধবার 19 July 2017, ৪ শ্রাবণ ১৪২8, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নিবন্ধনহীন বয়লার ৬০ দিনের মধ্যে বন্ধের নির্দেশ

 

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের সব শিল্প-কারখানার নিবন্ধনহীন বয়লার ৬০ দিনের মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে কলকারখানার বয়লারের নিবন্ধন ও নবায়ন পরিদর্শনের জন্য শিল্প মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়ে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবির সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এর আগে গত ১০ জুলাই আদেশটি দেয়া হলেও গতকাল মঙ্গলবার লিখিত আকারে আদেশটি প্রকাশ হয়েছে। 

বয়লার বিস্ফোরণের কারণে হতাহতদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ কেন দেয়া হবে না, যারা মেয়াদোত্তীর্ণ কিংবা ত্রুটিপূর্ণ বয়লার ব্যবহার করছে তাদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না, বয়লার বিস্ফোরণে শ্রমিক হতাহতের ঘটনা ঠেকাতে এবং কর্মস্থল নিরাপদ রাখতে সংশ্লিষ্টদের নিস্ক্রিয়তা ও ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং বয়লার আইন ১৯২৩ এর ২৮ ও ২৯ ধারা অনুযায়ী দুর্ঘটনা প্রতিরোধে বিধিমালা প্রণয়নে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। 

সরকারের শিল্প সচিব, পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, শ্রম ও কর্মসংস্থান সচিব, আইন সচিব, দুর্যোগ ও ত্রাণ সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, প্রধান বয়লার পরিদর্শক ও প্রধান কারখানা পরিদর্শককে তিন সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

গত ৯ জুলাই গাজীপুরের কাশিমপুরে পোশাক কারখানা মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের বয়লার বিস্ফোরণে ১৩ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় মালিকের বিরুদ্ধে নতুন করে এজাহার করার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করেন মানবাধিকার সংগঠন জাস্টিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মাহফুজুর রহমান মিলন। এতে বয়লার বিস্ফোরণে নিহতদের জন্য ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি বয়লার আইনের বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনাও চাওয়া হয়।

পরদিন ১০ জুলাই রিটের প্রাথমিক শুনানি হলে আদালত অন্তর্বর্তীকঅলীন আদেশ ও রুল জারি করেন। 

আইনজীবী মাহফুজুর রহমান মিলন বলেন, রিট আবেদনের পরদিনই এর শুনানি হয়। আদালত সেদিন মৌখিকভাবে কিছু নির্দেশনা দিলেও আজ (মঙ্গলবার) লিখিতভাবে সে আদেশ দিয়েছেন। 

গত বছর টঙ্গীতে ‘টাম্পাকো ফয়েলস লিমিটেডের কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে ৩৬ জনের মৃত্যু হয়।’ চলতি বছরে দিনাজপুরে ১১ জন এবং সিরাজগঞ্জে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে একইভাবে।

আইনজীবী মাহফুজুর রহমান মিলন বলেন, বয়লার কেবল গার্মেন্ট রিলেটেড কারখানায় ব্যবহার করা হয়, তা কিন্তু না। সার কারখানা, অটোমিলসহ বিভিন্ন কারখানায় বয়লার ব্যবহার করা হয়। এই বয়লার ব্যবহার নিয়ে ১৯২৩ সালের একটি আইন আছে। ওই আইনে বিভিন্ন গাইডলাইন দেয়া আছে- বয়লারের ব্যবহার, মেয়াদ ইত্যাদি বিষয়ে।

আইনে বলা হয়েছে, একজন প্রধান পরিদর্শকের মাধ্যমে নিয়মিতভাবে বয়লার পরিদর্শন করতে হবে। আবার ইচ্ছা করলেই কেউ বয়লার স্থাপন করতে পারবে না। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ছাড়পত্র দেয়া হলেই বয়লার স্থাপন করা যাবে। একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বয়লার নবায়নেরও বিধান রয়েছে।

তিনি বলেন, গাজীপুরে যে বয়লারটির বিস্ফোরণ ঘটেছে, সেটি ছিল মেয়াদোত্তীর্ণ। তাহলে এর জন্য দায়ী কে? প্রথমত দায়ী হল কারখানা মালিক। কারণ তিনি বয়লারটি মেয়াদোত্তীর্ণ জেনেও ব্যবহার করছিলের এবং নবায়ন করেননি। দ্বিতীয়ত পরিদর্শক, কারণ নিয়মিত পরিদর্শন করা হলে এ অঘটনটি নাও ঘটতে পারত।

এর আগে ৫ জুলাই মাল্টি ফ্যাবস লিমিটেড কারখানার মালিক, মহাব্যবস্থাপক বা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মামলা করে গ্রেফতার চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ দিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের সাবেক সহ-সম্পাদক এডভোকেট মো. সাইফুর রহমান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ