ঢাকা, বুধবার 19 July 2017, ৪ শ্রাবণ ১৪২8, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফেনী শহরের প্রধান সড়কগুলোর বেহাল দশা

ফেনী সংবাদদাতা : ফেনী শহরের প্রধান সড়কগুলো খানাখন্দে বেহাল দশা বিরাজ করছে। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় পিচ, খোয়া উঠে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এসব গর্তে পানি জমায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন সাধারণ মানুষ।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পৌরসভার প্রধান সড়ক এসএসকে সড়ক থেকে সদর হাসপাতাল মোড় ও লালপোল থেকে দেওয়ানগঞ্জ পর্যন্ত প্রায় ৮ কিলোমিটার। উল্লেখিত সড়কগুলো সড়ক ও জনপদ বিভাগের অধীনে। বছরখানেক আগে সড়কে খোয়া ছিটিয়ে নামমাত্র সংস্কার করা হয়েছে। পৌরসভার পক্ষ থেকে মাঝে মাঝে সংস্কার করা হয়। শহরে দেখা গেছে, সড়কের বিভিন্ন অংশে বড় বড় গর্ত। বৃষ্টির পানিতে ভরে আছে এসব গর্ত। এ অবস্থায় ঝুঁকি নিয়ে হেলেদুলে চলাচল করছে যানবাহন।
ফেনী সরকারি কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুম আসতেই সড়কগুলোতে এ রকম বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়। মাঝে মাঝে ইটের খোয়া ফেলে মেরামত করা হয়। তবে স্থায়ীভাবে মেরামত করা হয় না।
ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র আশ্রাফুল আলম গীটার জানান, সড়ক সংস্কার করতে সড়ক ও জনপদ বিভাগকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। সম্প্রতি জেলা উন্নয়ন সভায়ও বিষয়টি উত্থাপন হয়েছে।
জানতে চাইলে ফেনীস্থ সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ বলেন, সড়কের দু’পাশে ৯ ফুট হিসেবে ১৮ ফুট থাকার কথা থাকলেও পৌরসভা রাস্তা বর্ধিত করেছে। ওই অংশ সংস্কার করার পর্যাপ্ত তহবিল সওজের নেই। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। গত সপ্তাহে সংস্কারের জন্য সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের একটি টিম সড়ক পরিদর্শনে এসেছে। প্রতিবেদনের আলোকে ব্যয় নির্ধারণ করে একটি প্রস্তাব পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।
বৃষ্টি হলেই ভেসে যায় ফেনী শহর
বৃষ্টি হলেই পানির নিচে তলিয়ে যায় ফেনী শহরের প্রধান সড়ক এসএসকে সড়ক ও বিভিন্ন পাড়া-মহল্লার সড়কগুলো। গত মঙ্গলবার রাতভর বৃষ্টিতে এসব সড়কে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হলে সকালে কর্মস্থলগামী লোকজন ও স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষার্থীরা চরম দর্ভোগের শিকার হন।
রাত ১২টা থেকে থেমে থেমে বৃষ্টি শুরু হয়। পরে সকাল ৮টা পর্যন্ত ভারী বর্ষণে তলিয়ে যায় ফেনী শহরের প্রধান সড়ক এসএসকে সড়ক, সদর হাসপাতাল রোড। পাড়া-মহল্লার সড়কগুলোতে হাটু পরিমাণ পানি জমে। স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী ও কর্মস্থলমুখী লোকজন নির্ধারিত সময়ে গন্তব্যে পৌঁছতে ভিজে যেতে হয়। এছাড়া শহরের শহীদ সেলিনা পারভীন সড়ক, সুফী সদর উদ্দিন সড়ক, শাহীন একাডেমী সড়ক, পুরাতন পুলিশ কোয়ার্টার, শান্তি কোম্পানী এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এ ব্যাপারে ফেনী পৌরসভার দায়িত্বশীল সূত্র জনসাধারণের সচেতনতাকে দায়ী করেন।
ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী জানান, শহরের পানি নিষ্কাশনের প্রধান খাল দমদমা খালটি দীর্ঘদিন পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ সংস্কার না করায় পানি নামতে কিছুটা সময় লেগে যায়। এছাড়া শহরের বাসা-বাড়ির বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা ড্রেনে পলিথিনসহ নানা আবর্জনা ফেলার কারণে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ