ঢাকা, বুধবার 19 July 2017, ৪ শ্রাবণ ১৪২8, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চুয়াডাঙ্গায় মাদকের ভয়ঙ্কর ছোবলে ধ্বংস হচ্ছে যুবসমাজ ॥ উদ্বিগ্ন অভিভাবকমহল

এফ.এ আলমগীর, চুয়াডাঙ্গা: প্রশাসনের পক্ষ থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় স্থানীয়দের সাথে নিয়ে মাদকবিরোধী সভা সেমিনার ও বিজিবি’র পক্ষ থেকে সীমান্তবর্তী এলাকার গ্রামগুলোর বিভিন্ন স্থানে মাদক সেবনের কুফল, মাদকের অপব্যবহার ও মাদকের পাচাররোধে মানুষকে সচেতন করতে নিয়মিতভাবে সভা সমাবেশ করার পরও কোন ক্রমেই রোধ হচ্ছে না মাদক সেবন ও পাচার বরং প্রতিদিনই এসমস্ত কর্মকান্ডে নুতন নুতন মুখের উপস্থিতি দেখা যাচ্ছে। এমন কোন দিন নেই যেদিন জেলার ভারত সীমান্তের কোন স্থানে ভারত বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষীদের মধ্যে মানব পাচারসহ মাদক চোরাচালানী রোধে পতাকা বৈঠক হচ্ছে না। তার পরও মাদকের চোরাচালান ও সেবন অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে। প্রতিদিনই বিজিবি’র চোখ ফাঁকি দিয়ে সীমান্তের বিভিন্ন স্থান দিয়ে ভারত থেকে চোরাপথে মদ,ফেনসিডিল,গাঁজা, ইয়াবা, হেরোইনসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকদব্য। সীমান্তবর্তী গ্রামগুলো থেকে শুরু করে হাট-বাজারসহ বিভিন্ন শহরের অলিগলি এখন মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকাসক্তদের দখলে। মাদকের ভয়ঙ্কর নীল ছোবলে গোটা এলাকার তরুন ও যুবসমাজ জর্জরিত। সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন এলাকার অভিভাবকমহল।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলার ভারত সীমান্তঘেঁসা বিভিন্ন এলাকা দিয়ে বিজিবি ও পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে সীমান্তের চোরাপথে ভারত হতে মদ, গাঁজা, ইয়াবা, হেরোইন, যৌন উত্তেজক ট্যাবলেটসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকদব্য আসছেই। চোরাকারবারীরা সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে ভারত হতে এসব মাদকদ্রব্য পাচার করে এনে বিভিন্ন স্থানে জড়ো করে। সুযোগ বুঝে কিছু অংশ স্থানীয় পয়েন্টগুলোতে বিক্রি করে এবং চালানের সিংহভাগই অভিনব কায়দায় ট্রেন, বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কার, মোটর সাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহনযোগে চলে যায় রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। আর এসব মাদকদব্য চোরাচালান ও বহনের কাজে এলাকার উঠতি বয়সী কিশোর, যুবক, নানা বয়সী মহিলাসহ স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরাও জড়িয়ে পড়েছে। আবার নগদ অর্থের লোভে অনেক সম্ভ্রান্ত ও ধনাঢ্য পরিবারের সন্তানরাও পরিবারের সবার অজান্তে এসব মাদকদ্রব্য পাচার ও বেচাকেনার সাথে জড়িয়ে পড়ছে।
একাধিক সূত্রে জানা গেছে, দামুড়হুদার হুদাপাড়া, আটকবর, কুতুবপুর, মুন্সীপুর, কার্পাসডাঙ্গা, ঠাকুরপুর, বড়বলদিয়া, নাস্তিপুর, মদনা, সুলতানপুর, জয়নগর সীমান্তপথে ভারত হতে বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নিয়ে এসে সীমান্তবর্তী বিভিন্ন পয়েন্টে জড়ো করে।
পরে সুযোগ বুঝে এসব মাদকদ্রব্যের সিংহভাগই অভিনব কায়দায় ট্রেন, বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কার, মোটর সাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহনযোগে চলে যায় রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে।
এছাড়াও ভারত হতে চোরাপথে আনা এসব মাদকদ্রব্যের কিছু অংশ দর্শনা পৌর এলাকার জয়নগর, শ্যামপুর, ঈশ্বরচন্দ্রপুর, দর্শনা হল্ট স্টেশনের আশপাশ, হঠাৎপাড়া, পরানপুর বেলেমাঠ পাড়া, দর্শনা বাসস্ট্যান্ড, মাইক্রোস্ট্যান্ড, মহম্মদপুর, আজমপুর, পুরাতনবাজার রেলইয়ার্ড, হঠাৎপাড়া ও দর্শনার পার্শ্ববর্তী আকন্দবাড়িয়াসহ শহরের হাট-বাজার ও অলিগলি থেকে শুরু করে প্রায় দেড় শতাধিক স্পটে ফি-স্টাইলে এসব মাদকদব্য বিক্রি হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ