ঢাকা, বুধবার 19 July 2017, ৪ শ্রাবণ ১৪২8, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নানা অনিয়ম- দুর্নীতিতে নিমজ্জিত বোনারপাড়া রেলওয়ে জংশন

বগুড়া অফিস: উত্তর বঙ্গের ইতিহাস ঐতিহ্যবাহী রেলওয়ে জংশন বোনারপাড়া। ব্রিটিশ সরকার নির্মিত এই পুরাতন রেলওয়ে জংশন নানা অনিয়ম  দূর্নীতির কারনে ইতিহাস ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে। যেন দেখার কেউ নেই। লালমনিহাট থেকে সান্তাহার পর্যন্ত যতগুলো মিটার গেজ রেল স্টেশন রয়েছে তার মধ্যে বোনারপাড়া রেলওয়ে জংশনটি অন্যতম। গাইবান্ধা জেলার পূর্বাঞ্চল ও বগুড়া জেলার উত্তর পূর্বাঞ্চলে হাজার হাজার যাত্রী সাধারণ এই রেল স্টেশন দিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাতায়াত করে থাকে প্রতিনিয়ত কিন্তু অনেক ধকল ও হয়রানির শিকার হতে হয় যাত্রী সাধারণের। পর্যাপ্ত বিশ্রামাগার নেই এই প্রাচীনতম রেলওয়ে জংশনে। পবিএ ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার সময় চরম হয়রানী পোহাতে হয় দুর্গম পল্লী অঞ্চলের যাদের। রেলের টিকিট আগেই বিক্রি করে থাকে কতিপয় দালাল এজেন্টরা। যার সাথে স্বয়ং জড়িত  রেলের দুর্নীবাজ স্টেশনমাস্টার সহ কতিপয় চিহ্নিত কর্মচারীগণ। তাদের হয়রানীর শিকার এর অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসছে অনেক অজানা তথ্য। শুধু টিকিট ই কালো বাজারে বিক্রি হচ্ছেনা, রেলের ডিজেল ও প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে অহরহ যার সাথে জরিত স্টেশনের দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা শুধু তাই নয় মাসাধিকাল পূর্বে দায়িত্বঅবহেলার জন্য দোলন চাপা ও করতোয়া আন্তনগর ট্রেন মুখোমুখী সংঘর্ষের হাত থেকে মুক্তি পায় যার ফলে  একটি মারাক্তক রেলদূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছেন হাজার হাজার যাএী সাধারন।  দায়িত্বরত স্টেশন মাস্টার আতাউর রহমান জানান  আমি দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছি কিন্তু কেবিনে যিনি দায়িত্বে ছিলেন তার অবেহেলার কারণে দুর্ঘটনা ঘটতে যাচ্ছিল। এবং অন্যান্য অনিয়মের ব্যাপারে সকল অভিযোগ অস্বিকার করেন। এব্যাপারে সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়ারেছ আলী জানান বোনারপাড়া রেলষ্টেশনে যারা কর্মরত আছেন তারা কেউ সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করেন না। তিনি অবিলম্বে দায়িত্ব অবহেলাকারীদের অপসারণের দাবী জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ