ঢাকা, শুক্রবার 21 July 2017, ৬ শ্রাবণ ১৪২8, ২৬ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সোনারগাঁয় শ্রমিক মৃত্যুর ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ ॥ গাড়ি ভাংচুর

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পুরান টিপুরদী এলাকায় জোসনা নামের এক গার্মেন্ট শ্রমিক হিট স্টোকে মৃত্যুর ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ করেছে শ্রমিকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার টিপুরদী এলাকার ইউসান নামের গার্মেন্টের শ্রমিকরা গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষের গাফলতি ও অবহেলাকে দায়ি করে মহাসড়ক প্রায় এক ঘন্টা অবরোধ করে রাখে। এ সময় উত্তেজিত শ্রমিকরা মহাসড়কের ৮-১০টি গাড়ি ভাংচুর করে। অবরোধের কারণে ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। এ অবরোধের কারণে প্রায় ৭ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পরে কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার পর গার্মেন্ট ছুটি ঘোষণা করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গার্মেন্ট এলাকায় শিল্প পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার টিপুরদী এলাকায় অবস্থিত ইউসান গার্মেন্টে গত বুধবার রাতে জোসনা নামের এক শ্রমিক হিট স্টোকে আক্রান্ত হয়। এ সময় ওই শ্রমিক গার্মেন্টে ছটফট করতে থাকে। দীর্ঘ সময় পর ওই শ্রমিককে গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর ওই শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এ খবর গতকাল শ্রমিকদের মধ্যে ছড়িয়ে পরলে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক প্রায় এক ঘন্টা অবরোধ করে। এ সময় শ্রমিকরা প্রায় ৮-১০টি গাড়ি ভাংচুর করে। খবর পেয়ে কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অবরোধের কারণে ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। এ অবরোধের কারণে মেঘনা টোল প্লাজা থেকে শুরু করে কাঁচপুর কিউট পল্লী পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার উভয় পাশে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পরে গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ ঘটনার পর গার্মেন্ট ছুটি ঘোষণা করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গার্মেন্ট এলাকায় শিল্প পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

ইউসান গার্মেন্টের শ্রমিক রোকেয়া বেগম, কাউসার ও আরিফা বলেন, শ্রমিক জোসনা বেগম স্টোক করার পর ফ্লোরে ছটপট করছিল। কিন্তু গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ তাকে হাসপাতালে নেয়ার কোন উদ্যোগ গ্রহন করেনি। এ শ্রকিককে বাঁচাতে এম্বুলেন্স এনে হাসপাতালে নেয়ার দরকার ছিল। কিন্তু দীর্ঘ সময় পর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। ততক্ষণে জোসনা বেগম মারা যান। এ মৃত্যুর জন্য গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষের গাফলতিই দায়ী। 

এ বিষয়ে ইউসান গার্মেন্টের পরিচালক ওমর ফারুক টিটু বলেন, শ্রমিমের মৃত্যুর ঘটনায় গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষের কোনেব গাফলতি ছিলনা। সঠিক সময়ে ওই শ্রমিককে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শ্রমিকরা ভুল বুঝে আন্দোলনে নেমেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গার্মেন্ট ছুটি দেয়া হয়েছে। 

কাঁচপুর শিল্প পুলিশের ওসি আলী রেজা বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে শিল্প পুলিশ পাঠানো হয়েছে। শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে তুলে দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক করা হয়েছে। অপ্রতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ মেতায়েন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ