ঢাকা, রোববার 23 July 2017, ৮ শ্রাবণ ১৪২8, ২৮ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

তিন মাসের অবুঝ শিশুকে রেখে স্ত্রীকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করল পাষণ্ড স্বামী

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা : মায়ের কোলে তিন মাসের অবুঝ শিশু সন্তান তানভীর হোসেন। সে মাকে ভালোভাবে চিনে উঠার আগেই তার পিতা তার মাকে শ্বাসরোধ করে নির্মম ভাবে হত্যা করে। এ নির্মম ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভার চিলারবাগ গ্রামে। এঘটনার পর থেকে ঘাতক স্বামী তপু  রায়হান পলাতক রয়েছে। এবিষয়ে গতকাল দুপুরে নিহত গৃহবধূর মা বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার  এজাহারে উল্যেখ করা হয়েছে , সোনারগাঁ পৌরসভার চিলারবাগ গ্রামের আব্দুল হক মিয়ার ছেলে তপু রায়হানের সাথে মুন্সিগঞ্জ গজারিয়া উপজেলার পোড়াচক বাউশিয়া পশ্চিম নয়াকান্দি গ্রামের মজিবর রহমানের মেয়ে রাবিয়া আক্তার (২৩) এর প্রায় ৮বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় তার স্বামীর ব্যবসার কথা চিন্তা করে শ্বশুড় বাড়ি থেকে নগদ চার লাখ টাকা যৌতুক দেয়া হয়। দুই বছর যেতে না যেতে আবারো স্বামী তপু তার স্ত্রীকে আরো টাকা এনে দিতে বলে এবং এনে না দিলে তার সাথে ঘর-সংসার না করার হুমকি দেয়। বিয়ের পর থেকে এভাবে প্রতি বছরই বাবার কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে যৌতুকের টাকা এনে সংসার টিকিয়ে রেখেছিল রাবিয়া আক্তার। এর ধারাবাহিকতায় গত কয়েকদিন পূর্বে পিকআপ ভ্যান কিনার জন্য ফের দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে তপু রায়হান। গৃহবধূ রাবিয়া আক্তার যৌতুকের টাকা দেওয়ার কথা অস্বীকার করায় তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় । এর জের ধরে  স্বামী তপু রাহান, রাজু মিয়া,হক মিয়া,শাহিন মিয়া,হাসিব মিয়া,জাহিদ হোসেন,লিজা বেগম ও রুবি আক্তার পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। নিহতের ছয় বছর বয়সী তামিম হোসেন  ও তিন মাস বয়সী তানভীর হোসেন নামের দুটি নাবালক সন্তান রয়েছে।
নিহতের ছেলে তামিম হোসেন গতকাল থানায় এ প্রতিবেদককে বলেন, আমার মাকে আমার বাবা গলায় চেপে ধরে মেরে ফেলেছে।
অনুসন্ধান চালিয়ে জানা যায়, তপু রায়হান বখাটে প্রকৃতির লোক। সে নিজের বাড়িতে না থেকে ভাড়া বাড়িতে থাকতো। তার খারাপ আচরণের জন্য তিনি কোন বাড়িতে বেশি দিন ভাড়া থাকতে পারেনি। কয়েকমাস পূর্বে উপজেলার সোনারগাঁ পৌরসভার চিলারবাগ গ্রামের পনির হোসেনের বাড়িতে বাসা ভাড়া নেয় সে। সেই ভাড়াটিয়া বাসায় তার স্ত্রীর উপর নির্মমভাবে অত্যাচার চালাতো  সে।
মামলার বাদী ও নিহতের মা রাহিমা বেগম বলেন, আমার মেয়েকে যৌতুকের জন্যই পূর্বপরিকল্পিত ভাবেই শ্বাসরোধ ও হত্যা করে মেয়ের জামাই তপু রায়হান ও তার বাড়ির লোকজন। তিনি বলেন, আমার মেয়ের দুটি অবুঝ শিশু সন্তান রয়েছে। তাদের এখন আমি কিভাবে বাঁচাব একথা বলে তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। ঘাতক তপু সহ সকল আসামীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।
সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তানভীর আহমেদ জানান, নিহত গৃহবধূর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তবে ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলেই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে নিহত গৃহবধূর মা রাহিমা বেগম বাদী হয়ে আট জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ