ঢাকা, সোমবার 24 July 2017, ৯ শ্রাবণ ১৪২8, ২৯ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইসরাইল মসজিদে আকসায় অব্যাহত আগ্রাসন চালিয়ে মুসলমানদের হৃদয় রক্তাক্ত করছে

গতকাল রোববার ইসলামী ঐক্যজোট ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে ইসরাইলের হাত থেকে মসজিদুল আকসা মুক্ত করার দাবিতে রাজধানীতে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মিছিল বের করা হয় -সংগ্রাম

 

স্টাফ রিপোর্টার: মসজিদুল আকসার প্রবেশপথে নিরাপত্তা চৌকি ও তল্লাশি গেট বসিয়ে মসজিদে আকসাকে ঘিরে রাখা, মুসলমানদেরকে জুমার নামায় আদায়ে বাঁধা দেয়া, নিরীহ মুসলমানদের ওপর ইসরাইলের বর্বর হামলার প্রতিবাদে এবং ইসরাইলী দখলদারদের হাত থেকে মসজিদে আকসাকে মুক্ত করার দাবিতে ইসলামী ঐক্যজোটের বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে রাজধানীর বায়তুল মোকররম ও পল্টন এলাকা। এসময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা অবিলম্বে মসজিদুল আকসার প্রবেশপথ খুলে দেয়ার ও হামলা বন্ধের আহবান জানান। এছাড়া ইসরাইলের বিরুদ্ধে বিশ্ব মুসলিমকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান নেতারা। বিক্ষোভের পর ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহকে পুলিশ আটক করে মতিঝিল ডিসি অফিসে নিয়ে প্রায় এক ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দিয়েছে।

গতকাল রোববার বাদ আসর বায়তুল মোকররম উত্তর গেইটে ইসলামী ঐক্যজোট ঢাকা মহানগর আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী বলেন, ইসরাইলের জন্মই হয়েছে ইসলামশূন্য বিশ্ব গড়ার জন্য। সম্প্রতি মসজিদুল আকসায় প্রবেশপথে তারা নিরাপত্তা চৌকি ও তল্লশি গেট বসিয়ে মসজিদে আকসাকে যেভাবে ঘিরে রেখেছে এবং মুসলমানদেরকে জুমার নামায আদায়ে বাঁধা দিচ্ছে এবং মুসলমানদের যেভাবে হত্যা করছে, নির্যাতন নিপীড়ন করছে এর নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। তিনি ইসরাইলী দখলদারদের হাত থেকে মসজিদে আকসাকে মুক্ত করতে মুসলিম বিশ্বের নেতাদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান। 

বিশেষ অতিথি ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেন, ইসরাইল মসজিদে আকসায় আগ্রাসন চালিয়ে মুসলমানদের হৃদয় রক্তাক্ত করছে। নির্বিঘেœ মুসলিমদেরকে আল-আকসাতে প্রবেশ করতে দিতে হবে। ইসরাইলের কোনো অধিকার নেই মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতা হরণ করার। কারণ মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, 'যে ব্যক্তি মসজিদসমূহে তাঁর নাম উচ্চারণ করতে বাধা দেয় তার চাইতে বড় যালেম আর কে? ওদের জন্য ইহকালে লাঞ্ছনা এবং পরকালে কঠিন শাস্তি রয়েছে'। তিনি বলেন, আল-আকসা মুসলিম উম্মাহর। আল আকসার পবিত্রতা পৃথিবীর সব মুসলিমের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। মসজিদে আকসা মুসলিম উম্মাহকে ডাকছে। বিশ্ব মুসলিমকে এই ডাকে সাড়া দিয়ে আল্লাহর উপর ভরসা করে সোচ্চার প্রতিবাদ করার আহবান জানাচ্ছি। ইসলামের প্রতি অন্ধ বিদ্বেষের কারণে আজ যাদের অবস্থান মসজিদুল আকসার বিরুদ্ধে এবং ইসরাইলী সন্ত্রাসীদের পক্ষে তাদেরকে তাবৎ দুনিয়ার মানুষের উদ্বেগ ও অনুভূতিকে সম্মান জানাবার আহবান জানিয়ে মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেন, ফিলিস্তিন ও ফিলিস্তিনের নাগরিকদের সঙ্গে ইসরাইল যে আচরণ করেছে, তা কেবল সব আইনের লঙ্ঘন-ই নয়, বরং যাবতীয় নীতি নৈতিকতা ও মানবতার প্রতি চরম অশ্রদ্ধা। 

বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মহানগর সভাপতি মাওলানা আবুল কাশেম। বক্তব্য রাখেন ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা যুবায়ের আহমদ, যুগ্ম মহাসচিব মুফতী মোঃ তৈয়্যেব হোসাইন, মাওলানা আহলুল্লাহ ওয়াছেল, মুসলিম লীগের মহাসচিব আতিকুল ইসলাম, ইসলামী ঐক্যজোটের সহকারী মহাসচিব মাওলানা ফারুক আহমদ, পীরজাদা সৈয়দ মোঃ আহসান, মাওলানা একেএম আশরাফুল হক, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মাওলানা রিয়াজতুল্লাহ, মাওলানা গাজী হেদায়াত উল্লাহ, মাওলানা আনছারুল হক ইমরান, মাওলানা খোরশেদ আলম, আবুল হাসিম, নুরুজ্জামান প্রমুখ। সমাবেশ শেষে ইসলামী ঐক্যজোটের বিশাল বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে রাজধানীর বায়তুল মোকররম ও পল্টন এলাকা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ