ঢাকা, সোমবার 24 July 2017, ৯ শ্রাবণ ১৪২8, ২৯ শাওয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কালিয়াকৈরে গ্যাসের চুলা দিয়ে পানি বের হচ্ছে : গ্রাহকদের ভোগান্তি

কালিয়াকৈর সংবাদদাতা: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কয়েকটি এলাকায় প্রায় ২০দিন ধরে গ্যাসের চুলা দিয়ে গ্যাসের পরিবর্তে অবাধে পানি বের হচ্ছে। ফলে তিতাস গ্যাস গ্রাহকরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছে।
গ্যাস গ্রাহকরা জানান,উপজেলার লতিফপুর,সফিপুরপূর্বপাড়া, রাখালিয়াচালা, নিশ্চিন্তপুর দোকান পাড় এলাকার প্রায় দুই শতাধিক বৈধ গ্যাস গ্রাহকরা তাদের গ্যাসের চাপ না থাকলেও গ্যাসের চুলা দিয়ে পানি বের হওয়ার কারণে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। এসব বিষয়ে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিভিশন চন্দ্রা জোনাল কর্তৃপক্ষকে লিখিত আবেদন দিয়েও কোন সুরাহা হচ্ছে না।
খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ফোরলেন কাজের জন্য সড়কটি বর্ধিতকরণের কারণে খোঁড়াখুঁড়ির কাজ চলছে। এ সময়  মৌচাক, সফিপুর,কোনাবাড়ী এলাকায় মাটি কাটার ভেকু দিয়ে গাজীপুর থেকে যমুনা সেতু পর্যন্ত তিতাস গ্যাসের ভূ-গর্ভস্থ গ্যাসপাইপ ফুটো হয়ে যায়। এদিকে তিতাস গ্যাসের ভূ-গর্ভস্থ গ্যাসপাইপে গ্যাসের চাপ কম থাকায় সে সব স্থানে গ্যাস পাইপ ফুটো দিয়ে অবাধে পানি ঢুকে যাচ্ছে। আর গ্যাসের সামান্য চাপ বাড়লেই ওই সব পানি গ্রাহকের গ্যাসের চুলা দিয়ে দেদারছে  বের হচ্ছে। এতে দুই শতাধিক গ্যাস গ্রাহক গত ২০-২২দিন ধরে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। অনেক গ্রাহকই গ্যাসের চুলায় রান্না করতে পারছেন না। আবার অনেকেই মাটির চুলা ক্রয় করে লাকড়ি দিয়ে কোনরকমে রান্না করছে বলে জানিয়েছেন।
সফিপুর পুর্বপাড়া গ্যাস গ্রাহক সালমা খাতুন জানান, গত ২০-২২দিন ধরে চুলা দিয়ে গ্যাস বের হচ্ছেই না। চুলা চালু দিলেই পানি বের হচ্ছে। ফলে রান্না বান্না ও গৃহস্থালি কাজে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।
একই এলাকার আকরাম হোসেন, তাহের মিয়া জানান, বিষয়টি তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন চন্দ্রা জোনাল অফিসের কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানানো হলেও  কর্তৃপক্ষ কোন উদ্যোগ  নেয়নি। বিষয়টি দ্রুত সমাধান করার জন্য গ্যাসের উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানাই।
অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন :
এদিকে কালিয়াকৈর উপজেলার কামরাঙ্গারচালা ও যোগীরচালা এলাকায়  তিতাসের পাচ শত অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত  তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন চন্দ্রা জোনাল অফিস কর্তৃপক্ষ থানা পুলিশের সহায়তায় ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন  করে। এসময় প্রায় এক হাজার দুইশত ফুট পাইপ জব্দ করে। অভিযানে নেতৃত্ব দেন তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড চন্দ্রা জোনাল অফিসের ব্যবস্থাপক সুরুয আলম। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন- উপ-ব্যবস্থাপক আরিফ মাহমুদ বাবু, সহকারী প্রকৌশলী বিধান চন্দ্র পাল, সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ আমজাদ হোসেন, সহকারী কর্মকর্তা আঃ রাজ্জাকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী ও থানা পুলিশ। 
তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন চন্দ্রা জোনাল অফিস সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে কালিয়াকৈর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান পরিচালনা করছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ। এরই ধারাবাহিকতায়  উপজেলার বিভিন্ন কামরাঙ্গারচালা ও যোগীরচালা এলাকায়  অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন  অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ওই এলাকায় অবৈধ ভাবে নেয়া পাঁচ শত রাইজারের সংযোগ বিচ্ছিন্ন  এবং প্রায় এক হাজার দুইশত ফুট পাইপ জব্দ করা হয়।  তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন চন্দ্রা জোনাল অফিসের ব্যবস্থাপক সুরুজ আলম জানান, তিতাস গ্যাসের ভু-গর্ভস্থ পাইপ সড়কের কোন কালভার্টের নীচে ফুটো হতে পারে। আর ওই ফুটো দিয়ে যখন গ্যাসের প্রেসার কম থাকে তখন পানি ঢুকে যাচ্ছে। আবার ওই লাইনে গ্যাসের প্রেসার বেড়ে গেলে ভিতরে ঢুকা পানি গ্রাহকের চুলা দিয়ে বের হতে পারে। বিষয়টি দেখার জন্য একটি টিম কাজ করছে। অচিরেই এ সমস্যার সমাধান করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ