ঢাকা, শনিবার 29 July 2017, ১৪ শ্রাবণ ১৪২8, ৪ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দর্শনা শাপলা ক্লিনিকে হাতুড়ে চিকিৎসক নাজমুলের ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যু ॥ মা মৃত শয্যায়

চুয়াডাঙ্গা জেলা সংবাদদাতা: চুয়াডাঙ্গার দর্শনার “দর্শনা শাপলা ক্লিনিকে” হাতুড়ে চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় আবারও নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় মাকে সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।
জানাগেছে- গত বুধবার ভোর ৫টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের  কুন্দিপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের মেয়ে শাহনাজ (৩৭) এর প্রসব বেদনা উঠলে দর্শনা শাপলা ক্লিনিকে নিয়ে আসে। ক্লিনিকের স্টাফরা সাথে সাথে ঐ ক্লিনিকের নামধারী হাতুড়ে ডাক্তার (অপারেশন সহকারী) নাজমুলকে ডেকে এনে একটি প্রেসক্রিপশন করে দেন। মেয়ের বাবা তাৎক্ষণিক ঔষধ কিনে নিয়ে আসে এবং ঔষধ খাবার সাথে সাথে পেটের ভিতরেই বাচ্ছা মারা যায়।
 মেয়ের বাবা অভিযোগ করে বলেন- ডাক্তার নাজমুল রেজিস্টার্ড ডাক্তার না, কিন্তু কেন সে এমন ওষধ দিলো। তিনি আরো জানান- আমি সাথে সাথে চুয়াডাঙ্গার এক ডক্তারের কাছে ফোন দিয়ে কথা বলি, সে ঔষধের নাম শুনে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসার কারণে ঐ নবজাতকের মৃত্য হয়েছে বলে জানায়। বিষয়টি পরে জানাজানি হলে তারা ঐ পরিবারকে ১০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে চাই বলে মেয়ের বাবা সাংবাদিকদের জানায়। এ দিকে দর্শনা শাপলা ক্লিনিকের মালিক জালাল উদ্দিন বলেন- আমি ক্লিনিকে ছিলাম না,আমার ক্লিনিকে ভর্তি করায়নি এবং অপারেশনও করে নি। তার পরিবার সাংবাদিকদের জানায়- আমাদের সাথে আপোস মিমাংসা করার চেষ্টা চলছে।
এ বিষয়ে উক্ত কথিত ডাক্তার নাজমুলের সাথে কথা বললে সে এ প্রতিবেদককে জানায়- আমি উক্ত রোগীর চিকিৎসা করেছিলাম ঠিকই,কিন্তু বাচ্ছা আগেই মারা গিয়েছিল, আর আমি রোগীর বাড়ী গিয়ে ক্ষমা চেয়ে এসেছি। বাচ্ছা আগেই মারা গেলে আপনি কেন ক্ষমা চাইলেন? এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন- ঝামেলা আর মান সন্মান বাচানোর জন্য। উল্লেখ্য যে,দর্শনার মডার্ণ ক্লিনিক, মুক্তি ক্লিনিক ও শাপলা ক্লিনিকে একের পর এক ভুল চিকিৎসায় রোগী মারা গেলেও আজ পর্যন্ত কোন ঘটনারই স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সঠিক তদন্ত কওে ব্যবস্থা নেয়া হয়না, ফলে ক্লিনিকে লাশের মিছিল বাড়তেই আছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ