ঢাকা, শনিবার 29 July 2017, ১৪ শ্রাবণ ১৪২8, ৪ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইবিতে ছাত্রলীগ কর্মীদের মারামারি মামলা গ্রেফতার ১

ইবি সংবাদদাতা : বাসে সিট ধরাকে কেন্দ্র করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শাখা ছাত্রলীগ কর্মীদের মাঝে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার রাতে ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী লক্ষীপুর বাজারে এঘটনা ঘটে। এসময় ছাত্রলীগ কর্মীরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের মারধর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীসহ ৮জনের বিরুদ্ধে ছিনতাই মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় এজহারভুক্ত আসামী রতন শেখ নামে বাহিরাগত এক শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে, বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় কুষ্টিয়া থেকে ক্যাম্পাসগামী বাসে সিট ধরাকে কেন্দ্র করে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম ও  সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক আনিসুর রহমান আনিচ গ্রুপের কর্মীদের মাঝে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে হালিম গ্রুপের মিজান, নিশান, প্রসোনজিৎসহ ৭/৮ জন কর্মী আনিচ গ্রুপের সোহেল রানা নামে এক কর্মীকে মারধর করে। ঘটনার পর সোহেল স্থানীয় বন্ধুদের ফোন করে ক্যাম্পাস পাশ্ববর্তী লক্ষীপুর বাজারে অবস্থান নিতে বলে। গাড়ি লক্ষীপুর বাজারে পৌছালে স্থানীয়রা গাড়ি থামিয়ে দেয়। এসময় সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের কর্মীরা গাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরে মিজানকে গাড়িয়ে থেকে নামিয়ে নামে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধর করে তারা। এঘটনার পর সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের আরাফাতের নেতৃত্বে ২৫/৩০ জন ছাত্রলীগ কর্মী লক্ষীপুর বাজারে যায়। সেখানে আনিচ গ্রুপের কাউকে না পেয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মারধর করে তারা।
এ ঘটনায় প্রায় এক ঘন্টা দেরিতে গাড়ি ক্যাম্পাসে পৌছায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ে শিক্ষার্থীরা। গাড়িতে দু’দফায় মারামারির ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
এ ঘটনায় সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের কর্মী মিজান বাদী হয়ে ইবি থানায় ছিনতাই মামলা করেছে। মামলায় বিশ্ববিদ্যালয় দুই শিক্ষার্থীসহ ৮জনকে আসামী করা হয়েছে। মামলা নং ১০/২৭/৭/১৭।
শাখা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম বলেন, ‘ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীদের মারধরের বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ব্যবস্থা গ্রহন করার দাবি জানাচ্ছি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ