ঢাকা, মঙ্গলবার 01 August 2017, ১৭ শ্রাবণ ১৪২8, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রায় ২ কোটি টাকা উদ্বৃত্ত দেখিয়ে ইসিতে আ’লীগের হিসাব জমা

গতকাল সোমবার নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদার নিকট আওয়ামী লীগের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নির্বাচন কমিশনে (ইসি) ২০১৬ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়েছে। এবারও দলটির ব্যয়ের চেয়ে আয় বেশি বলে জানিয়েছেন দলের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক।
গতকাল সোমবার সকালে আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার কাছে দলের হিসাব জমা দেয়া হয়। হিসাব জমা দিতে যাওয়া প্রতিনিধি দলে আরো ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপুমনি এমপি ও উপদপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।
আব্দুর রাজ্জাক সাংবাদিকদের বলেন, ২০১৬ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব প্রধান নির্বাচন কসিশনারের কাছে দাখিল করা হয়েছে। এতে আয় হয়েছে ৪ কোটি ৮৪ লাখ ৩৪ হাজার ৯৭ টাকা এবং ব্যয় হয়েছে ৩ কোটি ১ লাখ ৮৪ হাজার ৭৯৯ টাকা। আয় বেশি হয়েছে ১ কোটি ৮২ লাখ ৪৯ হাজার ২৯৯ টাকা।
তিনি বলেন, বর্তমানে দলের ব্যাংক একাউন্টে আছে ২৫ কোটি ৫৮ লাখ ১১ হাজার ৪৪১ টাকা। ব্যাংক থেকে প্রাপ্ত মোট সুদের পরিমাণ ১ কোটি ২৪ লাখ ৬৪ ৭৯৬ টাকা।
আয়ের প্রধান উৎস সম্পর্কে তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদ, জাতীয় কমিটি, সহ-সম্পাদক, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটি, প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ ফি, সংসদ সদস্য, মনোনয়ন ফরম বিক্রয় (উপ নির্বাচন) অনুদান এবং ব্যাংক সুদ থেকে আয় হয়েছে।
ব্যয়ের প্রধান উৎসগুলো হলো কর্মচারীদের বেতন, বোনাস, আপ্যায়ন ও অন্যান্য খরচ, কেন্দ্রীয় সভা অথবা জনসভা, নির্বাচনী অফিস ব্যয়, উত্তরণ-পত্রিকা প্রকাশনা ও সংশ্লিষ্ট খরচ, ত্রাণ কার্যক্রম, বিভাগীয় ও জেলা জনসভা, সহযোগী সংগঠন অনুষ্ঠান, সাংগঠনিক খরচ ও অন্যান্য ব্যয়।
জানা গেছে, আওয়ামী লীগ ২০১৫ সালের আয়-ব্যয়ের যে হিসাব দাখিল করে সেখানে আয় দেখিয়েছিল ৭ কোটি ১১ লাখ ৬১ হাজার ৩৭৫ টাকা। আর  ব্যয় ৩ কোটি ৭২ লাখ ৮১ হাজার ৪৬৯ টাকা। অর্থাৎ সে সময় দলটি প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা উদ্বৃত্ত ছিল।
সদস্যদের চাঁদা, উপ-নির্বাচনের ফরম বিক্রি, ব্যাংকের সুদ, অনুদান, পত্রিকা-প্রকাশনা বিজ্ঞাপণ বাবদ আয় থেকে ওই পরিমাণ অর্থ আয় করেছিল আওয়ামী লীগ। আর কর্মচারীদের বেতন, ত্রাণ কার্যক্রম, বিভিন্ন কর্মসূচি, সভা ও জনসভা প্রভৃতি খাতে দলটি ব্যয় দেখিয়েছিল।
আওয়ামী লীগ বিগত তিন বছরেই উদ্বৃত্ত দেখিয়েছে। ২০১৪ সালে দলটির আয় ছিল ৯ কোটি ৫ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪৩ টাকা। আর ব্যয় ছিল ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৪০ হাজার ৮২১ টাকা। এতে প্রায় সাড়ে ৫ কোটি টাকা উদ্বৃত্ত ছিল।
২০১৩ সালে আওয়ামী লীগ আয় দেখিয়েছিল ১২ কোটি ৪০ লাখ টাকা। আর ব্যয় দেখিয়েছিল ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা। এতে প্রায় ৬ কোটি টাকার দলটির উদ্বৃত্ত ছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ