ঢাকা, মঙ্গলবার 01 August 2017, ১৭ শ্রাবণ ১৪২8, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পাইকগাছায় কপোতাক্ষ নদের ভয়াবহ ভাঙ্গন

খুলনা : পাইকগাছায় পানি উন্নয়ন বোর্ড, সড়ক ও জনপথ বিভাগের রশি টানাটানির ফলে কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে...

খুলনা অফিস : খুলনার পাইকগাছায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সড়ক ও জনপথ বিভাগের রশি টানাটানির ফলে কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে কপোতাক্ষ নদের পাড়ের মানুষ। গত কয়েক দিনে উজানের পানির তোড়ে আগরঘাটা বাজারের আশপাশের এলাকাসহ হরিঢালী, কপিলমুনির চার গ্রামের বহু মানুষের ঘরবাড়ি, ফসলী জমি, গাছপালা নদের গর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙ্গনরোধে অবিলম্বে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করে ক্ষতিগ্রস্তরাসহ স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান- মেম্বররা ক্ষোভ প্রকাশ করে ভাঙ্গন পরিদর্শনকালে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, এলাকার এমপির এক বছর আগের আর্থিক সহায়তার ঘোষণা বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন।
ভাঙ্গন কবলিত কপিলমুনি-হরিঢালীর মালথ গ্রামের মোহর মোড়ল (৬৫), বক্স মোড়ল (৭৭) জানান, নদের ভাঙ্গনে বাপ-দাদার ভিটেবাড়ি হারিয়ে রাস্তার ধারে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করতে হচ্ছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভাঙ্গনে দু’ইউনিয়নের মালথ, রামনাথপুর, দর্গামহল ও হাবিবনগর গ্রামের বাসিন্দা জজ নূর ইসলামসহ হাজারো পরিবারের শত শত বিঘার কৃষি জমি ও জনবসতি, সহায় সম্পদ নদের গর্ভে বিলীন হয়েছে।
ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, রাজনৈতিক নেতা, জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের লোকেরা বিভিন্ন সময় সহযোগিতার কথা বললেও তা কার্যকর হয়না।
স্থানীয় সিদ্দিকুর রহমান জানান, ইতোমধ্যে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রশীদুজ্জামান ও ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলীর তত্ত্বাবধানে ব্যবসায়ী মহল ও এলাকাবাসীর আর্থিক সহায়তায় কার্গো পাইলিং ইট বালি বল্লি বাঁশ বসিয়ে হুমকির সম্মুখিন আগরঘাটা বাজার ও পাইকগাছা-খুলনা মেইন সড়ক আপাতত রক্ষা পেয়েছে।
চেয়ারম্যান কওছার আলী, হরিঢালী’র ৯নং ওয়ার্ড সদস্য শেখ ফারুক হোসেন লাকী বলেন, জেলা পরিষদসহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করেও কোন সাড়া মেলেনি, এমনকি ভাঙ্গন প্রতিরোধে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ২ লাখ, স্থানীয় এমপি ১০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দের ঘোষণা দিলেও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি। তারা অবিলম্বে এ ঘোষণা বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন।
স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের শাখা কর্মকর্তা শহীদউল্লাহ মজুমদার বলেন, ভাঙ্গন এলাকা তাদের আয়ত্বের বাইরে। তবে তাঁদের ডিজাইন মতো সড়ক ও জনপথ বিভাগের অর্থ সহায়তায় ভাঙ্গন মোকাবেলার কথা রয়েছে।
খুলনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ বলেন, সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণে কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন পরিস্থিতি তুলে ধরতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ