ঢাকা, মঙ্গলবার 01 August 2017, ১৭ শ্রাবণ ১৪২8, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত

খুলনা অফিস : খুলনা-মাওয়া মহাসড়কে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-৬) সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মো. হোসাইন সিকদার ওরফে ভিক্টর (৪৫) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছে। রোববার গভীর রাতে বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার কাহালপুর এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলী উদ্ধার করেছে। ভিক্টর নড়াইলের কালিয়া উপজেলার জয়দেবপুর গ্রামের নুরু হক সিকদারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে খুলনার তেরখাদা, নড়াইলের কালিয়াসহ বিভিন্ন থানায় হত্যা, অপহরণ, চাঁদাবাজি, গুম ও ডাকাতির অন্তত ১০টি মামলা রয়েছে। 
এই ঘটনায় র‌্যাব-৬ এর উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) শামসুল কবির বাদি হয়ে মোল্লাহাট থানায় অজ্ঞাত পাঁচ/ছয়জনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে ও সরকারি দায়িত্বপালনে বাধা দেয়ার অভিযোগ এনে দু’টি মামলা করেছে।
মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আ ন ম খায়রুল ইসলাম জানান, গতকাল সোমবার দুপুরে বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে নিহত ভিক্টরের লাশের ময়না তদন্ত করা হয়েছে। পরিবারের কেউ লাশ নিতে না আসায় পুলিশ লাশ দাফন করতে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামের কাছে হস্তান্তর করেছে।
র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক খন্দকার রফিকুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি খুলনা-মাওয়া মহাসড়কে ঢাকাগামী পরিবহণে ডাকাতি বেড়ে যায়। ডাকাতি প্রতিরোধে মাওয়া মহাসড়কের বাগেরহাটের মোল্লাহাট অংশে র‌্যাবের চেকপোস্ট বসানো হয়। রোববার রাত ৩টার দিকে দুটি মোটরসাইকেলে পাঁচজন আরোহী ওই পথ দিয়ে যাওয়ার সময় তাদের দাঁড়াতে সিগন্যাল দেয়া হয়। কিন্তু তারা না দাঁড়িয়ে উল্টে র‌্যাবের সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। ওই সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে একটি মোটরসাইকেলের পেছন থেকে একজন আরোহী রাস্তার উপর পড়ে যায়। তবে অন্যরা দ্রুত মোটরসাইকেল চালিয়ে ফকিরহাটের দিকে পালিয়ে যায়।
পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় মোল্লাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ